Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ এপ্রিল, ২০১৯ ২৩:১১

সরকার গঠনের জটিল সমীকরণ দিলেন মমতা

কলকাতা প্রতিনিধি

সরকার গঠনের জটিল সমীকরণ দিলেন মমতা

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেছেন, চলতি লোকসভার নির্বাচনে এবার বিজেপি কিছুতেই সরকার গঠন করতে পারবে না। সব মিলিয়ে তারা যদি ১০০টা আসনও পায় তবে বুঝতে হবে তাদের ভাগ্য ভালো। তিনি গতকাল শিলিগুড়ির বাঘা যতীন পার্কে তার দল তৃণমূল কংগ্রেস আয়োজিত নির্বাচনী প্রচারণা সভায় বক্তৃতা করছিলেন। মমতা বলেন, ‘গত পরশু (১১ এপ্রিল) প্রথম দফায় ৯১টা আসনে ভোট হয়েছে। তাতে আগে ওদের ৩২টা আসন ছিল কিন্তু এবার শুনছি ১০টাও পাবে না। পুরো ঝাড়। অন্ধ্রপ্রদেশে বড় গোল্লা পাবে, তেলেঙ্গানায় গোল্লা। উত্তর প্রদেশে ৪টি আসনে ভোট হয়েছে সেখানেও গোল্লা। তবে কোথা থেকে হবে?’

তিনি আরও বলেন, ‘সরকার গঠনের জন্য ২৭২ আসন দরকার। সেখানে অন্ধ্র, তামিলনাড়ু, কেরল, কর্ণাটকে বিরোধীরা ৬০ শতাংশ আসন পাবে, উত্তর প্রদেশে বিরোধীরা ৮০ শতাংশ, বিহারে বিরোধীরা ৬০ শতাংশ আসন পাবে। বাংলা, উড়িষ্যা, দিল্লিতেও শূন্য। উত্তর-পূর্বেও শূন্য হবে। তাহলে পাবে কোথা থেকে? আসামে গতবারে যা ছিল এবার তা পাবে না। গুজরাটেও যা আসন ছিল তার ৬০ শতাংশ কমে যাবে। মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, ছত্তিশগড়ে বিরোধীদের দখলে ৬০ শতাংশ চলে যাবে। তো পাবে কোথা থেকে? ১০০টা আসনও যদি পায় তবে বুঝবেন ভাগ্য ভালো। তারা নাকি আবার সরকার গড়বে।’ বিজেপির বিরুদ্ধে ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করার অভিযোগ তুলে মমতা বলেন, ‘ধর্ম মানে হিংসা বা যুদ্ধ নয়। ধর্ম মানে মানবিকতা। কিন্তু সম্প্রতি আমরা লক্ষ্য করছি যে ধর্মের নামে কিছু রাজনৈতিক দল মিথ্যা ধর্মের আমদানি করে একে অন্যের সঙ্গে হিংসা করছে, সন্ত্রাসী করছে। সমাজকে কলঙ্কিত করার জন্য এরা নতুন ধর্মের আমদানি করছে। এর সঙ্গে হিন্দু, মুসলিম, খ্রিস্টান- কারওই সম্পর্ক নেই।’ তিনি আরও বলেন, ‘কেউ গদা নিয়ে, কেউ তরবারি নিয়ে রাস্তায় বেরিয়ে পড়েছেন ভোট চাইতে। রাজনীতির সঙ্গে এর কী সম্পর্ক? গদা নিয়ে কার মাথা ফাটাবেন? তরবারি নিয়ে কার গলা কাটবেন? মনে রাখবেন- এটা বাংলা, বাংলায় এসব করে ভোট হয় না। যারা ত্যাগ করবে তারা গেরুয়া পোশাক পরবে, এরা কারা- ভিতরে কালো আর সামনে গেরুয়া লাগিয়ে বলছে আমরাই সব।’ তার দাবি- ‘ধর্ম নিয়ে আমরা রাজনীতি করি না। আমাদের প্রয়োজন পড়ে না।’

মমতা তার ফোনে আড়িপাতার অভিযোগ তুলে বলেন, ‘বাড়িতে যে ভাই-বৌদির সঙ্গে কথা বলব যে আজকে এই বাজার করিস- সেটা পর্যন্ত তারা টেপ করে। বাজার থেকে দুটো আলু আর পটোল কিনি সেটাও টেপ করে। কোনো মানুষের কোনো স্বাধীনতা নেই। কোনো মানুষের কোনো গণতান্ত্রিক অধিকার নেই। সিবিআই, ইডি দিয়ে মানুষকে ভয় দেখানো হচ্ছে।’ তৃণমূলকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে দলের নেত্রী বলেন, ‘আমি সিপিআইএমের বন্ধুদের বলব, আপনারা সিপিআইএমকে ভোট দেবেন না, কারণ এতে বিজেপিরই হাত শক্ত হবে। তা ছাড়া ওরা বাংলা থেকে একটা আসনও পাবে না। কংগ্রেসও এ রাজ্যে সাইনবোর্ডে পরিণত হয়েছে, তাই তাদের ভোট দিয়ে আপনাদের ভোট নষ্ট করবেন না। এ রাজ্য থেকে ৪২টা আসনে জিতেই আমরা দিল্লি দখল করব। দিল্লিতে সরকার গঠন করব। মানুষের জন্য কাজ করব।’ জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি), নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিল নিয়েও কেন্দ্রকে তোপ দেগে মমতা বলেন, ‘বাংলায় তুমি এসো, তারপর তোমায় দেখাব। রসগোল্লা খাওয়াব, আর ভালো করে এনআরসি করাব।

বাংলায় কোনো দিন এনআরসির “এন”-ই হবে না তো “আর সি” কোথা থেকে হবে?’ তাঁর অভিমত- ‘বাংলার সংস্কৃতি এই গুন্ডা, গাদ্দার, অর্ধশিক্ষিত, গর্ধশিক্ষিতরা জানে না।’

বিজেপি ভুয়া খবর ছড়াচ্ছে- এ অভিযোগ তুলে মমতা ব্যানার্জি বলেন, ‘এরা সবসময় উল্টো-পাল্টা, মিথ্যা কথা বলে। বাংলাদেশে একটি ঘটনা ঘটেছিল, ওরা বলছে এটা বাংলায় হয়েছে। একটা ভোজপুরী সিনেমার ছবি দিয়ে ওরা বলল এ দাঙ্গা বাংলায় হয়েছে। পুরোটাই জালিয়াতি। রুপি দিয়ে ফেসবুক, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুল খবর ছড়াচ্ছে।’


আপনার মন্তব্য