Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ জুন, ২০১৯ ২৩:১৩

ভাগ্নেকে অক্ষত ফেরত চাইলেন সোহেল তাজ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ভাগ্নেকে অক্ষত ফেরত চাইলেন সোহেল তাজ

চট্টগ্রাম নগরী থেকে ৯ দিন আগে নিখোঁজ হওয়া যুবক সৈয়দ ইফতেখার আলম ওরফে সৌরভকে (২৭) জীবিত ও অক্ষত অবস্থায় ফেরত পাওয়া যাবে আশা করছেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তানজিম আহমেদ সোহেল তাজ। সৌরভের মা সৈয়দা ইয়াসমিন আরজুমান্দ হলেন সোহেল তাজের মামাতো বোন। সোহেল তাজ গতকাল দুপুরে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ডিআরইউ মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ৮ দিন আগে ভাগ্নে নিখোঁজ হয়েছে। এখনো সন্ধ্যান পাননি। তিনি বলেন, কার কী পরিচয় তা বড় কথা নয়। এ ধরনের ঘটনা কারও কাম্য নয়। সংবাদ সম্মেলনে ইয়াসমিন আরজুমান্দ ও তার স্বামী সৈয়দ মো. ইদ্রিস আলম উপস্থিত ছিলেন। সোহেল তাজ জানান, ভাগ্নের বিষয়টি তিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আইজিপিকে জানিয়েছেন। সিএমপি, পাঁচলাইশ থানাসহ তদন্ত সংশ্লিষ্টরা সৌরভকে উদ্ধারের চেষ্টা করেছেন। চট্টগ্রামের মিমি সুপার মার্কেটের আগোরার সামনে থেকে সৌরভকে অপহরণ করা হয় বলে তার বাবা সৈয়দ মো. ইদ্রিস আলম থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। লিখিত বক্তব্যে সৌরভের মা সৈয়দা ইয়াসমিন আরজুমান্দ বলেন, ২০১৭ সালে সৌরভের তৈরি ফিল্ম ‘বেঙ্গলি বিউটি’ দেশ-বিদেশে খ্যাতি অর্জন করে। সে সময় সওদা নামে এক মেয়ের সঙ্গে তার পরিচয় ও যোগাযোগ হয়। মেয়েটি ফোনেই বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার জন্য সৌরভকে প্রস্তাব দেয়। তাতে সৌরভ রাজি হয়নি। একপর্যায়ে মেয়েটিকে তার অমতে পরিবার তাকে অন্যত্র বিয়ে দিয়ে দেয়। কিন্তু ওই বিয়ে ২০১৮ সালেই ভেঙে যায়। সৌরভের মা বলেন, ‘এরপর থেকে মেয়েটির বাবা ব্যবসায়ী সালেহ আজাদ চৌধুরী আমার ছেলেকে দোষারোপ করেন এবং প্রাণনাশের হুমকি দেন। ২০১৯ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি সৌরভকে উত্তরা র‌্যাব সদর দফতরে ডেকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ ও ভয়ভীতি দেখানো হয়। ১২ ফেব্রুয়ারি বনানী থানায় ওসি সৌরভকে ডেকে নিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং বিভিন্ন মামলায় ফাঁসানোর হুমকি দেয়। এক সপ্তাহ পর এনএসআইয়ের দুই কর্মকর্তা বনানীর এক রেস্টুরেন্টে সৌরভের সঙ্গে বৈঠক করে।’ তিনি বলেন, ৮ জুন বিকাল ৩টার দিকে সৌরভকে চট্টগ্রাম মিমি সুপার মার্কেটের আগোরার সামনে থেকে তুলে নেওয়া হয়। আমরা সৌরভকে ফেরত চাই। অপহরণকারীরা কি প্রভাবশালী, তাদের পরিচয় প্রকাশ করতে চেয়েছিলেন ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে- এমন প্রশ্নে সোহেল তাজ বলেন, আমাদের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, লোকাল পুলিশ যোগাযোগ করছে। রাষ্ট্রীয় সংস্থার কর্মকর্তার নম্বর থেকে কল গেছে সৌরভের ফোনে। সেটা আমরা জানতে পেরেছি। সৌরভকে ফিরে পাওয়ার চেষ্টায় আছি।


আপনার মন্তব্য