শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:৩৮

পাকস্থলীতে ইয়াবা পাচার স্বামী-স্ত্রীর

অন্তর্বাসে ইয়াবা, রোহিঙ্গাসহ দুজন আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক

পাকস্থলীতে করেও যে ইয়াবা পাচার হচ্ছে- তার প্রমাণ পাওয়া গেছে রাজধানীতে স্বামী-স্ত্রী ধরা পড়ার পর। তাদের পাকস্থলীতে মিলেছে সাড়ে ৫ হাজার ইয়াবা।

পুলিশ জানিয়েছে, কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে রাজধানীতে ইয়াবার চালানটি নিয়ে পৌঁছানোর পর গত বৃহস্পতিবার রাতে ধরা পড়েন ওই দম্পতি। তারা জানিয়েছে, প্রতিটি ইয়াবা বাবদ ১০ টাকা করে পাওয়ার কথা ছিল তাদের।

গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অভিযানে চালানটি আটকের পর পুলিশ বলছে, এর আগেও তারা পেটে করে ইয়াবার চালান নিয়ে এসেছিল। মকবুল বেপারী-রত্না বেগম দম্পতির পাকস্থলীতে ইয়াবা আছে- এ তথ্যের ভিত্তিতে তাদের গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ। পেটের মধ্যে ইয়াবা বহন করার কথা তারা স্বীকারও করে। এরপর এক্স-রে করার জন্য তাদের নিয়ে যাওয়া হয় রাজারবাগ পুলিশ লাইন হাসপাতালে। সেখানে এক্স-রে করার পর মকবুলের পাকস্থলীতে পাওয়া  যায় ৩ হাজার পিস ইয়াবা, আর তার স্ত্রী রত্নার পাকস্থলিতে আড়াই হাজার ইয়াবা পাওয়া যায়। বৃহস্পতিবার রাতে মতিঝিলের আরামবাগ থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।  মকবুল বেপারী পুলিশকে জানান, কক্সবাজার থেকে ইয়াবা প্যাকেট করে তাদের দিত। তারা সেটা খেয়ে পেটে করে নিয়ে আসতেন। তার স্ত্রী রত্না বেগম বলেন, ‘আমার স্বামীকে দেখে এ পথে এসেছি। এ ছাড়া আমার সুদের কিছু টাকার ঋণ রয়েছে। সেটার জন্য আমি এটা করতে বাধ্য হয়েছি।’ ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) গুলশান বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) মশিউর রহমান বলেন, আমরা অনেক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করি। তাদের কাছ থেকে অনেক মাদকদ্রব্য উদ্ধার করেছি। মাদকটা এমন পর্যায়ে পৌঁছে গেছে যে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দ্বারা নিয়ন্ত্রণ সম্ভব নয়। এজন্য সমাজের প্রত্যেক শ্রেণি-পেশার মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে।

অন্তর্বাসে ইয়াবা পাচার রোহিঙ্গাসহ দুজন আটক :  অন্তর্বাসে বিশেষ কায়দায় ইয়াবা পাচারের সময় দুইজনকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। এরমধ্যে জিয়াউর রহমান নামে একজন রোহিঙ্গা নাগরিক রয়েছেন। অপর ইয়াবা ব্যবসায়ী হলেন সৈয়দ হোসেন। গতকাল নগরীর বায়েজীদ থানাধীন অক্সিজেন এলাকায় এ অভিযান চালানো হয়। মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (জনসংযোগ) শাহ মো. আবদুর রউফ বলেন, ‘অন্তর্বাসে বিশেষ কায়দায় ইয়াবা পাচারের সময় দুইজনকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে ২ হাজার ৮০০ ইয়াবা জব্দ করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করা হয়েছে।’ আবদুর রউফ বলেন, ‘গ্রেফতাররা দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজার থেকে ইয়াবা পাচার করে আসছিলেন। এর আগে তারা একাধিক চালান নিয়ে চট্টগ্রামে পাইকারি মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে পৌঁছে দিয়েছেন।’


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর