শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৮ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ জুলাই, ২০২১ ২৩:৫৩

চিকিৎসককে মারধরের অভিযোগে যুবলীগ নেতা গ্রেফতার

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

Google News

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরি বিভাগে দায়িত্বরত চিকিৎসককে লাঞ্ছিত ও মারধরের ঘটনায় উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মাহবুবুল আলম মণিসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে মুক্তাগাছা থানা পুলিশ। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২টার দিকে মুক্তাগাছা শহর থেকে মাহবুবুল আলম মণিকে গ্রেফতার করা হয়। পরে গতকাল সকালে জাহিদুল ইসলাম জুয়েল, রানা দে, মো. কামরুজ্জান ও রাকিবুল হোসেন শরীফকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

মুক্তাগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ দুলাল আকন্দ বলেন, মঙ্গলবার রাতেই ভুক্তভোগী চিকিৎসক এ এইচ এম সালেকিন মামুন বাদী হয়ে মুক্তাগাছা থানায় মামলা করেন। গ্রেফতার ব্যক্তিদের আদালতের মাধ্যমে ইতিমধ্যেই জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

মামলার বরাত দিয়ে ওসি জানান, মঙ্গলবার বেলা ২টার দিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি সেবার নম্বরে কল  করেন মাহবুবুল হক মণি। এ সময় তিনি তার মায়ের করোনা পরীক্ষার জন্য বাসায় গিয়ে নমুনা সংগ্রহের বিষয়ে জানতে চান। তখন তাকে বলা হয়, বাসায় গিয়ে নমুনা সংগ্রহ বন্ধ রয়েছে। হাসপাতালে নিয়ে এসে নমুনা জমা দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। এর কিছুক্ষণ পর মণি দলবল নিয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে মেডিকেল অফিসারের কক্ষে ঢুকে দরজা বন্ধ করে তাকে গালিগালাজ ও মারধর করেন।

এদিকে মুক্তাগাছায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দায়িত্বরত চিকিৎসক এ এইচ এম সালেকিন মামুনকে মারধরের ঘটনায় এবং দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে গতকাল সকাল ৯টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত কর্মবিরতি পালন করেন হাসপাতালের চিকিৎসক-নার্সসহ কর্মরতরা। দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান ভারপ্রাপ্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. উৎপল সরকারসহ চিকিৎসকরা।