শিরোনাম
শনিবার, ৮ জুলাই, ২০২৩ ০০:০০ টা
বাজারদর

বাড়ছে সবজি কমেছে মুরগির দাম

নিজস্ব প্রতিবেদক

সব ধরনের সবজির দাম ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে। কাঁচা মরিচ, আদা ও টম্যাটো বিক্রি হচ্ছে বছরের যে কোনো সময়ের তুলনায় সর্বোচ্চ দামে। সব মিলিয়ে নিত্যপণ্যের মূল্য নিয়ে চরম অস্বস্তিতে সাধারণ ক্রেতারা। বিশেষ করে নিম্ন ও নিম্নমধ্যবিত্ত আয়ের মানুষ সংসারের প্রয়োজনীয় চাহিদা ঠিকমতো পূরণ করতে পারছেন না। অনেকেই আগের তুলনায় কম বাজার নিয়ে বাসায় ফিরছেন। তবে ব্রয়লার মুরগির দাম কিছুটা কমেছে। গতকাল রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন চিত্র দেখা যায়। রাজধানীর শনিরআখড়া বাজারে শসা ৬০-৮০, করলা ১০০, উচ্ছে ৮০, পেঁপে ৫০, কাঁকরোল ৬০, গাজর ১০০-১২০, টম্যাটো ২৫০, লম্বা বেগুন ৮০, গোল বেগুন ১০০, ঢ্যাঁড়শ ৬০, পটোল ৬০-৭০, চিচিঙ্গা ৬০-৮০, ধুন্দল ৭০-৮০, শজনে ১০০, বরবটি ৭০, কচুর ছড়া ৭০, গোল আলু ৪৫ ও কাঁচা মরিচ ৩৫০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া প্রতিটি লাউয়ের দাম ৭০-৮০, চালকুমড়া ৫০-৬০ ও মিষ্টিকুমড়া ৪০ থেকে ১০০ টাকা। লেবুর হালি ১০ থেকে ৪০ টাকা। এ ছাড়া বাজারে দেশি পিঁয়াজ ৮০, ভারতীয় পিঁয়াজ ৫০, ক্রস জাতের পিঁয়াজ ৭৫, আদা ৩২০-৩৬০, দেশি রসুন ১৬০, ভারতীয় রসুন ২০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। বিক্রেতারা বলছেন, বর্ষাকাল হওয়ায় সবজির দাম বেড়েছে। সবজি বিক্রেতা আবদুল মালেক বলেন, ‘বর্ষাকাল এলে সবজির দাম বাড়ে। কারণ অনেক সবজির গাছ বর্ষাকালে মরে যায়। এতে সবজির ঘাটতি পড়ে তাই দাম বাড়তি হয়। এ ক্ষেত্রে শাকের দাম কিছুটা কম থাকে। ঈদের পরে আজকেই পুরোপুরি বাজার খুলেছে। এর আগের কয়েক দিন সব দোকান ঠিকমতো খোলেনি। এ কারণেই আজ ক্রেতার সংখ্যা বেশি। তবে সব ক্রেতাই বলছেন সবজির দাম অনেক বেশি।’ বাজার করতে আসা চাকরিজীবী হামিদ বিশ্বাস বলেন, ‘আজকে বাজারে সব সবজির দামই বেশি। টম্যাটো ২৫০ ও কাঁচা মরিচের কেজি ৩৫০ টাকা। দাম কমাতে বলেছিলাম, কিন্তু কমায়নি। তাই আর কিনিনি।’ আরেক ক্রেতা ফছেৎ আহমেদ বলেন, ‘এতদিন কাঁচা মরিচ নিয়ে কত কিছু। প্রতিদিনই দাম ওঠানামা করছে। এখন দেখছি সবজির দামও বেশি।’ সবজি বিক্রেতা শফিক আহমেদ বলেন, ‘সবজির দাম এখন একটু বাড়তিই আছে এটা অস্বীকার করার জো নেই। যখন কম দামে কিনতে পারব তখন কমে বিক্রি করব।’ মাছের বাজারে দেখা যায়, পোয়া ৪০০, তুলার ডাঁটি ৪৫০, গুঁড়া চিংড়ি ও বড় চিংড়ি ৮০০, সুরমা ২৬০ এবং ৩৫০ থেকে ৪০০ গ্রাম ওজনের ইলিশের কেজি ৭০০; ৮০০ থেকে ৯০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ ১ হাজার ৬০০; ট্যাংরা ৫০০, মৃগেল ২৪০, পাঙ্গাশ ১৮০, বাতাসি ২৮০, রুই ২৫০-৪৫০, কাতলা ৩০০-৫০০, কাঁচকি ৫০০, কই ২৫০, পাবদা ৫০০ ও শিং ৬৫০ টাকা কেজি। এ ছাড়া ব্রয়লার মুরগি ১৭০-১৮০, কক ২৫০-২৬০, দেশি মুরগি ৬৪০ ও গরুর গোশত ৭৮০-৮০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

সর্বশেষ খবর