শিরোনাম
প্রকাশ : ১৮ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:১৯
প্রিন্ট করুন printer

রাণীশংকৈলে মনোনয়ন ফরম দাখিলে আচরণবিধি লঙ্ঘন

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

রাণীশংকৈলে মনোনয়ন ফরম দাখিলে আচরণবিধি লঙ্ঘন

ঠাকুরগাঁও রাণীশংকৈল পৌরসভা নির্বাচনের মনোনয়ন ফরম দাখিলে আচরণবিধি মানছেন না প্রার্থীরা। সরেজমিনে দেখা যায়, আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি ও স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থীরা মানেনি কোনো আচরণবিধি।

আচরণবিধি লঙ্ঘনে পিছিয়ে নেই নারী-পুরুষ কাউন্সিলর প্রার্থীরাও। তবে প্রার্থীরা আচরণবিধি লঙ্ঘন করে মনোনয়ন ফরম দাখিল করলেও নির্বাচন কর্মকর্তা বা রিটার্নিং কর্মকর্তার তেমন কোনো সক্রিয় ভূমিকা চোখে পড়ার মত ছিল না। 

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন কর্তৃক জারিকৃত পৌরসভা নির্বাচন আচরণ বিধিমালার ১১নং শর্তে স্পষ্ট বলা রয়েছে-কোনো প্রার্থী মনোনয়ন ফরম দাখিলের সময় কোনো প্রকার মিছিল কিংবা শো-ডাউন করিতে পারিবে না। এছাড়াও পাঁচজনের বেশি সমর্থক নিয়ে মনোনয়ন ফরম দাখিল করিতে পারিবে না। নির্বাচনের পূর্বে কোনো প্রকার মিছিল বা শো-ডাউন করিতে পারিবে না। অথচ এ নীতিমালাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে একাধিক প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করতে দেখা গেছে।

রবিবার ছিল মনোনয়ন ফরম দাখিলের শেষ দিন। এদিন বেলা ১২টায় মিছিল নিয়ে মনোনয়ন ফরম দাখিল করতে আসেন উপজেলা যুবলীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আবদুল খালেক, পর্যায়ক্রমে মিছিল নিয়ে উপজেলা বিএনপির সভাপতি আইনুল হক, পীরগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সম্পাদক জিয়াউর রহমান ইউপি চেয়ারম্যান মাহবুব আলমসহ তার দলীয় কর্মী সমর্থকদের সাথে নিয়ে মনোনয়ন ফরম দাখিল করেন বিএনপির মনোনীত প্রার্থী মাহমুদুন নবী পান্না বিশ্বাস, ছাত্রলীগের সাবেক নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী রুকুনুল ইসলাম ডলারও ব্যাপক সমর্থক ও মিছিল নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি বর্তমান পৌর মেয়র আলমগীর সরকার, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সম্পাদক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান বঙ্গবন্ধু প্রকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সইদুল হক সম্পাদক তাজউদ্দীন, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর সরকার, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মাহফুজা বেগমসহ নৌকা প্রতীক সহকারে বিশাল মিছিল নিয়ে মনোনয়ন ফরম দাখিল করেন।

এর আগে শনিবার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন ফরম দাখিল করেন পৌর আওয়ামী লীগের সম্পাদক ভিপি রফিউল ইসলাম, জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী আলম, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোখলেসুর রহমান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি নওরোজ কাউসার কানন, সাধন বসাক, ইসতেখার আলম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মোকাররম হোসাইন সকলেই মিছিল নিয়ে মনোনয়ন ফরম দাখিল করেন।

এছাড়াও নারী-পুরুষ কাউন্সিলর প্রার্থীরাও মিছিল নিয়ে মনোনয়ন ফরম দাখিল করেন।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, মেয়র পদে মোট ১২ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। কাউন্সিলর পদে ৩৪ জন সংরক্ষিত নারী আসনের ১২ জন প্রার্থী মনোনয়ন ফরম দাখিল করেছেন।

পৌরসভা নির্বাচনে নারী ভোটার ৭ হাজার ৩৬৮জন ও পুরুষ ভোটার ৭ হাজার ২৮৬ জন। সর্বমোট ভোটার ১৪ হাজার ৬২৪ জন। ভোট অনুষ্ঠিত হবে ১৪ ফেব্রুয়ারি।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আঁখি সরকার জানান, সুষ্ঠুভাবে মনোনয়ন ফরম দাখিল হয়েছে। ভোটের সকল কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত করা হবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রার্থীদের বারবার সতর্ক করে বলা হয়েছে কোনো মিছিল শো-ডাউন নিয়ে মনোনয়ন ফরম দাখিল করা যাবে না। তবে মনোনয়ন দাখিলের সময় আমার কাছে ৪/৫ জনের বেশি লোক আসেনি। তারপরও যেহেতু অনেকেই আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছে বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হবে।

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর