শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ মে, ২০২১ ০৪:০১
আপডেট : ১৯ মে, ২০২১ ১০:৫৯
প্রিন্ট করুন printer

ঈদ যাতায়াতে সড়ক দুর্ঘটনায় ২৪৯ জন নিহত

অনলাইন ডেস্ক

ঈদ যাতায়াতে সড়ক দুর্ঘটনায় ২৪৯ জন নিহত
ফাইল ছবি
Google News

করোনার (কোভিড-১৯) কারণে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ। এরপরও এবার ঈদুল ফিতর উপলক্ষে যাতায়াতে সড়ক দুর্ঘটনায় ২৪৯ জন নিহত হয়েছেন। আর আহত হয়েছেন ৩৮৫ জন। গত ৬ থেকে ১৭ মে পর্যন্ত (১৪ মে ঈদুল ফিতরের দিনসহ) মোট ১২ দিনে সড়ক, মহাসড়ক ও পল্লী এলাকাসহ সারাদেশে ২০৭টি দুর্ঘটনায় এই হতাহত হয়।

পরিবেশ ও নাগরিক অধিকারবিষয়ক দুটি সামাজিক সংগঠন গ্রিন ক্লাব অব বাংলাদেশ (জিসিবি) এবং নৌ সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটির এক যৌথ প্রতিবেদনে মঙ্গলবার (১৮মে) এমন পরিসংখ্যান প্রকাশ করা হয়।

তারা জানান, দেশের ১৫টি জাতীয় ও আঞ্চলিক দৈনিক এবং আটটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও সংবাদ সংস্থায় প্রকাশিত তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে যৌথভাবে এই প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিহতদের মধ্যে ৩৫  নারী, ২৯ শিশু, ২৩ পথচারী এবং চালকসহ ২৭ জন পরিবহন শ্রমিক রয়েছেন। দুর্ঘটনা ও হতাহতের সংখ্যা সর্বশেষ ঈদের (গত বছরের ঈদুল আজহা) ছুটির চেয়ে বেশি বলে উল্লেখ করা হয় প্রতিবেদনে।

এতে বলা হয়, ২০২০ সালে ঈদুল আজহার দিনসহ আগে ও পরে ১২ দিনে সারা দেশে ১৮৭টি দুর্ঘটনা ঘটে; যেখানে ২২৯ নিহত ও ৩১৮ জন আহত হন। এ সময় সর্বোচ্চ মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা ঘটেছে ৯৮টি; যেখানে মৃত্যু হয়েছে ১০৭ জনের। এ সময়ের মধ্যে মহাসড়কে ৩৩ দশমিক ৫, অভ্যন্তরীণ সড়কে ৩৬, গ্রামীণ সড়কে ১৮ দশমিক ৫ এবং শহর এলাকার সড়কে ১২ শতাংশ দুর্ঘটনা ঘটেছে।

দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি বাড়ার কারণ 

সংগঠন দুটির যৌথ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে দূরপাল্লার বাস, যাত্রীবাহী অভ্যন্তরীণ নৌযান এবং ট্রেন চলাচলের ওপর সরকারি নিষেধাজ্ঞার কারণে এবারের ঈদে সড়ক, মহাসড়ক ও গ্রামাঞ্চলের সড়কগুলোতে বিপুলসংখ্যক প্রাইভেটকার ও অন্যান্য ছোট যানবাহন চলাচল করেছে। এগুলোর ওপর কার্যত সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কড়া নজরদারি ও তদারকি ছিল না। সুতরাং দুর্ঘটনা ও প্রাণহানির সংখ্যা বৃদ্ধির জন্য এসব যানবাহন অনেকাংশে দায়ী।

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ

এই বিভাগের আরও খবর