Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১ জুন, ২০১৯ ০০:০১

কলকাতায় ঈদের কেনাকাটার ধুম

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

কলকাতায় ঈদের কেনাকাটার ধুম

গ্রীষ্মের প্রখর দাবদাহ উপেক্ষা করে ঈদের আগে কেনাকাটার আনন্দে মেতে উঠেছে কলকাতা। নিউমার্কেট থেকে শুরু করে বিগ বাজার, কোয়েস্ট মল, সিটি মার্ট, বাজার কলকাতাসহ শহরের নামি শপিং মলগুলোয়ও শেষ মুহূর্তের কেনাকাটার ব্যস্ততা। ভিড় চোখে পড়েছে নিউমার্কেটে মান্যবর, সুলতান, মিলনের মতো বড় দোকানেও। স্থানীয় বাসিন্দারা তো আছেনই কিন্তু ঈদের সময় বাংলাদেশিদের ভিড়টাই মূলত চোখে পড়ার মতো। বৃহস্পতিবার বিকালেই নিউমার্কেটের প্রখ্যাত বস্ত্রবিপণি ‘মিলন’-এ কেনাকাটা করতে আসেন ঢাকার তরুণী মৌ। তিনি জানান, ‘আমি অনেকবারই এসেছি কিন্তু এবার ঈদের আগে একটু শপিং করার ইচ্ছা থেকেই কলকাতায় আসা। আর মিলন ভালো লাগে এ কারণে যে এক জায়গাতেই সবকিছু পাওয়া যায়। এ ছাড়া এখানকার পোশাকগুলো আনকমন।’ এন ইসলাম নামে বাংলাদেশ থেকে আগত এক ব্যক্তি জানান, ‘বাংলাদেশ থেকে কলকাতায় কালেকশন অনেক বেশি। পছন্দের জিনিসও অনেক। দামও সাধ্যের মধ্যেই। আম্মু, বোন ও কাজিনের জামাকাপড় ও পাঞ্জাবি কেনা হয়েছে।’ ঢাকার বাসিন্দা বিনয়ার কাছে ঈদের সময় ভারতে কেনাকাটা করতে আসাটা অনেকটা ‘রথ দেখা কলা বেচার’ মতো। বছর ত্রিশের এই অল্পবয়সী নারী জানান, ‘আসলে আমরা ইন্ডিয়ার জিনিসটা বেশি পছন্দ করি এখানকার কালেকশনের জন্য। কারণ নতুন জিনিসটা পাওয়া যাবে। এ ছাড়া ঘোরাটাও হয়।’ এবারের ঈদে নিজের ও বাসার জন্য শো-পিস, শাড়ি কেনা হয়েছে বলেও জানান তিনি। মিলনের কর্মকর্তা আশিস কুমার জানান, ‘এবার বাংলাদেশ থেকে প্রচুর ক্রেতা এসেছেন। প্রতিবারই আমাদের নতুন নতুন কালেকশন থাকে, দামও সাধারণের নাগালের মধ্যে। এবারের নতুন কালেকশন হলো বেনারসি দোপাট্টা, কারারা, সারারা, ব্র্যাজো, আনারকলি। তবে চাহিদা বেশি কারারা-সারারারই।’ পোশাকের দোকানের পাশাপাশি খাবারের দোকানগুলোও সুন্দরভাবে সাজানো হয়েছে। সারা দিনের রোজা শেষে ফলের জুস ছাড়াও নানা ভাজি দিয়ে ইফতার সেরে নিচ্ছেন মুসলিমরা। ইফতার শেষ হতেই আবার শুরু হচ্ছে কেনাকাটার পর্ব।


আপনার মন্তব্য