শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৮ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ জুন, ২০১৯ ২৩:৪৭

প্রেমের ফাঁদে ধর্ষণ মামলার আসামি ধরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

প্রেমের ফাঁদে ধর্ষণ মামলার আসামি ধরা

রাজশাহীর বাগমারা থানা পুলিশ এবার নতুন কৌশলে আসামি ধরেছে। প্রেমের ফাঁদে ফেলে তারা ধর্ষণ মামলার পলাতক এক আসামিকে গ্রেফতার করেছে। জানা গেছে, দেড় মাস ধরে একজন নারী পুলিশ মোবাইল ফোনে ওই আসামির সঙ্গে প্রেমের অভিনয় করে দেখা করার কথা বলে ডেকে আনেন। এরপর তাকে গ্রেফতার করা হয়। ওই আসামির নাম আবুল কালাম আজাদ (২৭)। তিনি উপজেলার শুভডাঙ্গা ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামের বাসিন্দা। বাগমারা থানার উপ-পরিদর্শক সৌরভ কুমার চন্দ্র বলেন, গত ১৫ এপ্রিল আবুল কালাম আজাদ এলাকার এক নারীর ঘরে ঢুকে ধর্ষণ করেন। একপর্যায়ে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে এলে কালাম আজাদ পালিয়ে যান। পরের দিন ওই নারী বাদী হয়ে থানায় ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেন। মামলার পর থেকে পলাতক ছিলেন কালাম আজাদ। নানাভাবে তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চালিয়েও ব্যর্থ হয় পুলিশ। এ অবস্থায় আসামিকে গ্রেফতারে থানার একজন নারী পুলিশ সদস্যকে দিয়ে আবুল কালাম আজাদকে প্রেমের ফাঁদে ফেলা হয়। দেড় মাস ধরে নারী পুলিশ সদস্য তার সঙ্গে প্রেমের অভিনয় করেন।
ঈদ উপলক্ষে গতকাল দুপুরে উভয়ে মোহনপুর থানার সীমান্তবর্তী হাসনাবাদ এলাকায় দেখা করার দিনক্ষণ ঠিক করেন। তারা কী ধরনের পোশাক পরবেন, তাও আলাপ হয়  মোবাইল ফোনে। পোশাক দেখে পরস্পরকে চেনা যাবে বলেও ঠিক হয়। দুপুর ১টার দিকে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সৌরভ কুমার চন্দ্র নারী কনস্টেবলকে নিয়ে নির্ধারিত স্থানে হাজির হন। সাদা পোশাকে থাকা মামলার তদন্ত কর্মকর্তাও ওঁৎ পেতে থাকেন। পোশাক দেখে চিনে আসামি নারী কনস্টেবলের কাছে এসে গল্প শুরু করলে তাকে ধরে ফেলে পুলিশ। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বলেন, আসামি ধরতে কৌশল অবলম্বন করা হয়েছে। দেড় মাস ধরে চেষ্টা চালানোর পর সফল হওয়া গেছে। আসামি মোহনপুর থানা এলাকায় আত্মগোপন করে ছিলেন। বিকালে ওই মামলায় আসামিকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। পুলিশের এই কৌশল এলাকায় চমক সৃষ্টি করেছে।


আপনার মন্তব্য