শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৩১ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩০ মে, ২০২১ ২৩:৩০

মোহাম্মদপুরের আগুনে দগ্ধ শিশুর মৃত্যু, শঙ্কায় বাবা-মা

নিজস্ব প্রতিবেদক

Google News

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে নবোদয় হাউজিংয়ে গ্যাস লিকেজ থেকে সৃষ্ট আগুনে একই পরিবারের দগ্ধ তিনজনের মধ্যে দুই বছর বয়সী শিশুটি মারা গেছে। তার নাম মোরসালিন। শনিবার রাতে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই শিশুর মৃত্যু হয়। আগুনে শিশুটির শরীরের ৮০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছিল। বার্ন ইউনিট ও চিকিৎসক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। এর আগে, গত শুক্রবার রাত পৌনে ৩টার দিকে নবোদয় হাউজিংয়ের একটি টিনশেড বাসায় আগুন লাগে। বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক এস এম আইয়ুব হোসেন বলেন, মোহাম্মদপুরে আগুনের ঘটনায় দগ্ধ শিশু মোরসালিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাত ১২টায় মারা গেছে। তার শরীরের ৮০ ভাগ দগ্ধ হয়েছিল। শিশুটি হাসপাতালের সাত তলায় ভর্তি ছিল। এ ছাড়া তার মা লাবণী আক্তার (২৫) ও একই ফ্লোরে বাবা সোহেল (৩৫) আইসিইউতে চিকিৎসাধীন। তাদের দুজনের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। এর মধ্যে সোহেলের শরীরে ৭৫ শতাংশ এবং লাবণীর শরীরে ৩০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। গত শুক্রবার রাত পৌনে ৩টার দিকে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের নবোদয় হাউজিংয়ের সি ব্লকের ২ নম্বর টিনশেড বাড়িতে আগুন লাগে। চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা বাইরে বেরিয়ে তাদের রুমের সামনে গিয়ে ভিতরে আগুন জ্বলতে দেখেন।

সে সময় সোহেল ও লাবণী রুমের বাইরে দাঁড়িয়ে ছিলেন। তাদের শরীরে আগুন জ্বলছিল। আর বাচ্চাটি আগুনের মধ্যে রুমের ভিতরেই ছিল। তখন প্রতিবেশীরা রুমের ভিতরে ঢুকে বাচ্চাটিকে বাইরে বের করে আনে। এরপর তাদের তিনজনকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। দুই মাস আগে সোহেল পরিবারসহ ওই বাসায় ওঠেন। সোহেল বেকার, তার স্ত্রী অন্যের বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ করেন। তাদের বড় মেয়ে গ্রামের বাড়িতে থাকে। গ্যাস লাইন লিকেজ হয়ে রুমের ভিতর জমাট গ্যাস মশার কয়েলের সংস্পর্শে এসে আগুনের সূত্রপাত বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়রা।