শিরোনাম
প্রকাশ : ৭ মার্চ, ২০২১ ১০:৪৩
আপডেট : ৭ মার্চ, ২০২১ ১২:৩২
প্রিন্ট করুন printer

তুরস্কে 'ঐতিহাসিক ৭ মার্চ' উদযাপিত

তুরস্ক প্রতিনিধি

তুরস্কে 'ঐতিহাসিক ৭ মার্চ' উদযাপিত

তুরস্কের আংকারাস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে 'ঐতিহাসিক ৭ মার্চ' উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মেনে তুরস্কে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাসউদ মান্নান এসডিসি  দূতাবাসের সকলকে নিয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন।

অনুষ্ঠানে দূতাবাসে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং প্রবাসী বাংলাদেশীরা উপস্থিত ছিলেন। সভার শুরুতেই কুরআন তেলাওয়াত এবং দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় 'ঐতিহাসিক ৭ মার্চ' উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত বাণী পাঠ করা হয়। এরপর আইসিটি বিভাগ হতে প্রাপ্ত বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের উপর নির্মিত ভিডিও প্রদর্শন করা হয়। 

আলোচনা অনুষ্ঠান পর্বে বঙ্গবন্ধু’র ৭ মার্চ-এর ভাষণের তাৎপর্য এবং বাঙালির জাতীয় জীবনে এর গুরুত্ব তুলে ধরে বিভিন্ন স্মৃতিচারণমূলক আলোচনা করা হয়। অনুষ্ঠানে তুরস্কের আঙ্কারা ইউনিভার্সিটিতে অধ্যায়নরত বাংলাদেশের ছাত্র সৈয়দ রাশেদ হাসান চৌধুরী এবং একই ইউনিভার্সিটির সহকারী প্রভাষক ড. মঈনুল আহসান গঠনমূলক বক্তব্য প্রদান করেন। 

আলোচনা অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত মসউদ মান্নান এসডিসি তার বক্তব্যের শুরুতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সকল সদস্যেদের নিয়ে স্মৃতিচারণমূলক আলোচনা করেন এবং বঙ্গবন্ধুর প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন, '৭ই মার্চের ভাষণের পরই সমগ্র দেশজুড়ে বাংলার মানুষ সংগঠিত হতে শুরু করে এবং স্বাধীনতার আন্দোলনের চূড়ান্ত রূপ লাভ করে।'

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পর্বে ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে রাষ্ট্রদূত এবং মিশন উপ-প্রধান মো. রইচ হাসান সরোয়ার কবিতা আবৃত্তি করে শোনান। পরিশেষে, বাংলাদেশের চিরাচরিত খাবার পরিবেশনার  মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠানটির সমাপ্তি হয়।
 

 

বিডি প্রতিদিন / অন্তরা কবির 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর