শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ এপ্রিল, ২০১৯ ২৩:৫২

শিরোপাতেই চোখ বাংলাদেশের

পর্দা ওঠার অপেক্ষায় বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

শিরোপাতেই চোখ বাংলাদেশের

ঘরোয়া আসর করতেই যেখানে হিমশিম খেতে হয়, সেখানে আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের আয়োজন সত্যিই কষ্টকর। তবে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনকে ধন্যবাদ দিতে হয় যে তারা বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ মাঠে নামাতে পারছে। এরপর আবার প্রথমবারের মতো নারী আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট করতে যাচ্ছে। সোমবার থেকেই মাঠে গড়াচ্ছে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা অনূর্ধ্ব-১৯ নারী আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট। এ সিদ্ধান্ত আবার বেশি দিনের নয়, চলতি বছরের শুরুতে বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন ঘোষণা দেন এপ্রিলেই বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ হবে।

বাংলাদেশের কালচারে আবার সিদ্ধান্ত হলেও তা বাস্তবে রূপ নিতে সময় পার হয়ে যায়। বঙ্গমাতা গোল্ডকাপের বেলায় তা হয়নি। সালাউদ্দিনের এক ঘোষণায় নির্ধারিত সময়ে টুর্নামেন্টের পর্দা উঠতে যাচ্ছে। বাফুফে আন্তর্জাতিক নারী টুর্নামেন্টের আয়োজন করবে তা স্বপ্নই ছিল। কিন্তু বাংলাদেশের নারী ফুটবলারদের সাফল্যে তা সম্ভব হচ্ছে। দেশের মাটিতে বঙ্গমাতার নামকরণে টুর্নামেন্ট খেলতে মারিয়ারা অপেক্ষায় ছিলেন। সে অপেক্ষার অবসান ঘটতে যাচ্ছে।

শুরুতে ছয় দেশকে নিয়েই টুর্নামেন্ট হবে। এ গ্রুপে স্বাগতিক বাংলাদেশ, কিরগিজস্তান, সংযুক্ত আরব আমিরাত। বি গ্রুপে খেলবে মঙ্গোলিয়া, তাজিকিস্তান ও লাওস। দলগুলো ঢাকায় আসতে শুরু করেছে। গতকাল রাতেই ঢাকায় পৌঁছানোর কথা তাজিকিস্তান নারী ফুটবলারদের। আজ আসবে সংযুক্ত আরব আমিরাত, মঙ্গোলিয়া ও লাওস। শেষ দল হিসেবে কিরগিজস্তান আসবে আগামীকাল। বিদেশি পাঁচ দলই থাকবে হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে। বাংলাদেশের মেয়েরা থাকবেন বাফুফে ভবনে।

বঙ্গমাতা গোল্ডকাপের ট্রফি তৈরি করা হয়েছে লন্ডনে। সুদৃশ্য শিরোপা ট্রফিটি ঢাকা পৌঁছেছে। দুই গ্রুপের শীর্ষ চার দলকে নিয়ে সেমিফাইনাল হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফাইনালে পুরস্কার বিতরণ করবেন। ম্যাচ দেখতে দর্শকদের টিকিট লাগবে না। বঙ্গমাতা প্রথম আয়োজন সফল করতে কর্মকর্তারা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

ঘরের মাঠে প্রথম বঙ্গমাতা টুর্নামেন্ট জেতার লক্ষ্যে নিয়ে মাঠে নামছেন মারিয়ারা। পাঁচ দলের যে শক্তি তাতে বাংলাদেশ শিরোপা জেতার সামর্থ্য রাখে। কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন বলেছেন, ‘অনুশীলন নিয়ে আমি সন্তুষ্ট। বঙ্গমাতা কাপ জিতে মেয়েরা আত্মবিশ্বাস ফেরাতে চায়।’

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের ইতিহাসে বাফুফে প্রথম আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের আয়োজন করে ১৯৭৫ সালে। সেবার ক্লাবভিত্তিক আগা খান গোল্ডকাপ মাঠে নামলেও মাঝপথে স্থগিত হয়ে যায়। ১৯৭৬, ’৭৭ ও ’৮২ সালে তিনবার এ টুর্নামেন্ট হয়। ’৮১ সালে শুরু হয় প্রেসিডেন্ট গোল্ডকাপ। ’৯২ সালের পর তা বিলুপ্ত হয়ে যায়। ’৯৬ সালে প্রথমবারের মতো মাঠে গড়ায় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ। ’৯২ সালে বিটিসির পৃষ্ঠপোষকতায় একবার ক্লাবভিত্তিক আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট হয়। এবারে নতুনভাবে সংযোজন হলো বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ।


আপনার মন্তব্য