শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১০ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৯ মার্চ, ২০২১ ২৩:৪৫

বার্সার ‘মিশন ইম্পসিবল’

►পিএসজি-বার্সেলোনা ►লিভারপুল-লিপজিগ

ক্রীড়া ডেস্ক

বার্সার ‘মিশন ইম্পসিবল’

বার্সেলোনার নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়ে হুয়ান লাপোর্তা ঘোষণা করেছেন, চল, জয়ের আশায় প্যারিসে যাই।  লাপোর্তার এই বক্তব্য লিওনেল মেসিদের মধ্যে বাড়তি প্রেরণা এনে দিতে পারে। কিন্তু পিএসজির মাঠে ‘মিশন ইম্পসিবল’ নিয়েই খেলতে নামবে বার্সেলোনা। কোয়ার্টার ফাইনালে খেলতে হলে ইউরোপিয়ান কাপ অথবা উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসটাই বদলে দিতে হবে কাতালানদের! এই প্রতিযোগিতার নকআউট পর্বে প্রথম লেগে নিজেদের মাঠে ৩ গোলের ব্যবধানে হেরে কোনো দলই পরের রাউন্ড খেলতে পারেনি।

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ ষোলোর প্রথম লেগে নিজেদের মাঠে পিএসজির কাছে ৪-১ গোলে হেরে যায় বার্সেলোনা। শেষ আটে খেলতে হলে বার্সাকে অন্তত ৪-০ গোলে জিততে হবে পিএসজির মাঠে। বার্সেলোনা কোচ রোনাল্ড কোম্যান আগেই স্বীকার করেছেন, ‘আরও একটি ম্যাচ আছে বটে। কিন্তু ৪-১ গোলে পরাজয়ের পর আমি আপনাদেরকে মিথ্যা আশ্বাস দিতে পারি না। আমাদের সুযোগ খুবই কম।’ তবে অসম্ভব নয় বলেও মনে করেন কোম্যান। ২০১৬-১৭ মৌসুমে এমনই এক পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছিল কাতালানরা। সেবার পিএসজির মাঠে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শেষ ষোলোর প্রথম লেগে ৪-০ গোলে হেরেছিল বার্সেলোনা। নিজেদের মাঠে দ্বিতীয় লেগটা জিতেছিল ৬-১ গোলে। চার বছর আগের সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হবে এবার!

২০১৭ সালে বার্সেলোনায় নেইমার ছিলেন। সে সময় সুয়ারেজও ছিলেন। এমএসএন ত্রয়ীতে মুগ্ধ ছিল সারা দুনিয়া। এখন একা মেসির কাঁধেই সব ভার। নেইমার এখন পিএসজিতে। অবশ্য ইনজুরির কারণে তিনি আজও বার্সেলোনার মুখোমুখি হতে পারবেন না। পিএসজি এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, নেইমার একা একা অনুশীলন করে যাবেন। দিন কয়েক পরে তার অবস্থা পর্যবেক্ষণ করা হবে।

বার্সেলোনা দীর্ঘদিন পর শেষ   ষোলো খেলেই বিদায় নেওয়ার পথে রয়েছে। ২০০৬-০৭ মৌসুমে সর্বশেষ কাতালানরা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলো খেলে বিদায় নিয়েছে। এরপর থেকে প্রতিবারই অন্তত কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছে তারা।

 

দীর্ঘদিনের রেকর্ডটা কী তবে শেষ করতে চলেছে পিএসজি!

আজ এমনকি ৩-০ গোলে হারলেও কোয়ার্টার ফাইনাল খেলবে পিএসজি।

পরিসংখ্যান (প্রথম লেগ: বার্সেলোনা ১-৪ পিএসজি)

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে বার্সেলোনার বিপক্ষে গত তিন ম্যাচে দুটিতেই জিতেছে পিএসজি (একটিতে হার)।

ইউরোপিয়ান কাপ/চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে কোনো দলই দুই লেগের নকআউট পর্বে হোম ম্যাচে (১ম লেগ) ৩ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হওয়ার পর পরের রাউন্ডে খেলতে পারেনি।

পিএসজির মাঠে সর্বশেষ ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে খেলেছে বার্সেলোনা। সেবার ৪-০ গোলে হেরেছিল কাতালানরা।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নকআউট পর্বে গত ৯ ম্যাচে মাত্র একবারই জিতেছে বার্সেলোনা। ২০১৯ সালের এপ্রিলে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে (১-০)।

পিএসজি নিজেদের মাঠে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গত ২২ ম্যাচে টানা গোল করেছে। সবমিলিয়ে এ সময় তারা ৬১টি গোল করেছে।

সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে বার্সেলোনার সঙ্গে ১২ ম্যাচ খেলে ৪টিতে জয় পেয়েছে পিএসজি। বার্সেলোনার জয় ৫টিতে। বার্সেলোনার ২৩ গোলের বিপরীতে পিএসজি গোল করেছে ২০টি।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ১১ ম্যাচের মুখোমুখিতে ৪টি করে জয় পেয়েছে বার্সা ও পিএসজি।