শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৫ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ জুলাই, ২০২১ ০০:১১

মুশফিক দেশে ফেরায় বড় ধাক্কা

প্রস্তুতি ম্যাচে টাইগারদের দাপুটে ব্যাটিং

ক্রীড়া প্রতিবেদক

Google News

বায়ো সিকিউর বাবলে মানসিক ধকল থেকে কিছুটা স্তস্তি পেতে জিম্বাবুয়েতে টি-২০ সিরিজ খেলতে চাননি মুশফিকুর রহিম। ওয়ানডে সিরিজ খেলেই তার দেশে ফেরার কথা ছিল। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার শর্ত ও বায়ো বাবলের কারণেই মত পরিবর্তন করেছিলেন মিস্টার ডিপেন্ডেবল। এক দিন আগেই জানা গিয়েছিল মুশফিক টি-২০ খেলছেন। কিন্তু গতকাল দুপুরে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়ে দেয় জিম্বাবুয়েতে ওয়ানডে ও টি-২০ কোনো সিরিজই খেলছেন না মুশফিক। পারিবারিক সমস্যার কারণে তিনি দেশে ফিরছেন।

এ খবরটি বাংলাদেশ দলের জন্য জন্য বড় একটা ধাক্কা। মুশফিক হচ্ছেন ওয়ানডে ব্যাটিংয়ে মিডল অর্ডারে ভরসা। তাই তাকে ছাড়া জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজে বেশ বেকায়দাতেই পড়ে গেল দল।

এদিকে মুশফিকুর রহিমের পরিবারসূত্রে জানা গেছে, করোনা উপসর্গ থাকায় মিস্টার ডিপেন্ডেবলের বাবা ও মাকে বগুড়া থেকে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়েছে। ফুসফুসে প্রদাহের কারণে উন্নত চিকিৎসার জন্য গতকালই অ্যাম্বুলেন্সে তাদের রাজধানীতে নিয়ে আসা হয়। এ খবর পাওয়ার পর বাবা-মার পাশে থাকতে মুশফিক জরুরি ভিত্তিতে দেশে ফিরছেন বলে জানিয়েছে তার পরিবার।

জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে সিরিজের একমাত্র টেস্টে খেলেছেন মুশফিক। প্রথম ইনিংসে ব্যাট করে ১১ রান করেছেন। টেস্টে বাংলাদেশ ২২০ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে স্বাগতিকদের।

জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে দাপট দেখানোর পর টাইগাররা ওয়ানডে মিশনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ওয়ানডে হচ্ছে বাংলাদেশের পছন্দের ফরম্যাট। টেস্টে ভালো করায় টাইগারদের আত্মবিশ্বাস তুঙ্গে। যদিও মুশফিক ফেরায় ধাক্কা খেল দল। তবে গতকাল একটি সুখবরও পেয়েছে বাংলাদেশ দল, খেলছেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল।

টাইগার দলপতি হাঁটুর চোটে ভুগছিলেন। গতকাল হাঁটুতে টেপ পেঁচিয়ে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে নামেন ড্যাসিং ওপেনার। দারুণ একটি ফিফটিও হাঁকান।

জিম্বাবুয়ে সিলেক্ট একাদশের বিরুদ্ধে রান পেয়েছেন সাকিব আল হাসান, মোহাম্মদ মিথুন, মোসাদ্দেক হোসেনও। হারারেতে ৫০ ওভারের প্রস্তুতি ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে ৬ উইকেটে ২৯৬ রান তোলে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ে ৪০.১ ওভারে ৭ উইকেটে ১৮৯ রান তোলার পর আলোর স্বল্পতায় ম্যাচ বন্ধ হয়ে যায়। পরে বাংলাদেশ ডি/এল পদ্ধতিতে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। তবে কত রানের ব্যবধানে জয় এলো তা জানতে পারেনি তামিমরা। ম্যাচ কর্মকর্তারা নাকি তাদের কিছুই জানাননি।

তামিম ইকবাল খেলেন ৬২ বলে ৬৬ রানের ইনিংস। তার ইনিংসে ছিল ১১টি বাউন্ডারি ও একটি বিশাল ছক্কা। সাকিবের ব্যাট থেকে আসে ৩৭ রান। এ ছাড়া মিথুন ৩৯ এবং মোসাদ্দেক ৩৬ রান।

মুশফিক না থাকায় চারে লিটন দাস। যদিও তিনি সুবিধা করতে পারেননি। তবে জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে প্রথম ওয়ানডেতে একই পজিশনে দেখা যেতে পারে লিটনকে।

তবে ওয়ানডেতে মুশফিকের না থাকাটা যে দলের জন্য বড় ধাক্কা তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ : ২৯৬/৬ (৫০ ওভার) (তামিম ৬৬, মিথুন ৩৯*, মাধেভেরে ২/১২, ২/৭৩, চিভানগা ২/৪৪ )।

জিম্বাবুয়ে : ১৮৯/৭ (৪০.১ ওভার) (মারুমা ৫৯*, মায়ার্স ৪২, মোসাদ্দেক ২/১৬, সাইফউদ্দিন ২/৩৩)।