শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৩১ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩০ আগস্ট, ২০২১ ২২:৫২

দুই কিপারেই আস্থা ডমিঙ্গোর

বিশ্বকাপের স্কোয়াড আগে ঘোষণার ব্যাখ্যায় টাইগার কোচ বলেন, ‘আমার জানা মতে, নিউজিল্যান্ড সিরিজ শেষ হওয়ার এক-দুই দিন আগে বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণা করতে হবে।

ক্রীড়া প্রতিবেদক

দুই কিপারেই আস্থা ডমিঙ্গোর
ফাইল ফটো
Google News

১০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে টি-২০ বিশ্বকাপের চূড়ান্ত স্কোয়াড ঘোষণা করতে হবে। বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড টি-২০ সিরিজও শেষ হবে ওই দিন। তাহলে টাইগার টিম ম্যানেজমেন্ট কবে ঘোষণা করবেন ১৫ ক্রিকেটারের চূড়ান্ত স্কোয়াড? প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন জানিয়েছেন, নিউজিল্যান্ড সিরিজ শেষ হওয়ার আগেই বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণা করা হবে। টাইগার হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গো সিরিজের আগেই স্কোয়াড চেয়েছিলেন। কারণও ব্যাখ্যা করেছেন। গতকাল ভার্চুয়াল মিটিংয়ে বিশ্বকাপের দল ছাড়াও উইকেটরক্ষক হিসেবে মুশফিকুর রহিম এবং নুরুল হাসান সোহানকে নিয়ে কথা বলেছেন। টাইগার অধিনায়ক স্পষ্ট করেই জানিয়েছেন, পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম দুটিতে উইকেটের পেছনে গ্লাভস হাতে দাঁড়াবেন সোহান। পরের দুটিতে অভিজ্ঞ মুশফিক। শেষ ম্যাচে কে গ্লাভস হাতে দাঁড়াবেন, সেটা প্রথম চার ম্যাচের পারফরম্যান্সের বিচারে ঠিক করা হবে।

টি-২০ বিশ্বকাপ ১৭ অক্টোবর শুরু, ফাইনাল ১৪ নভেম্বর। প্রথম রাউন্ডে খেলবে বাংলাদেশ। খেলাগুলো হবে ওমানে। চূড়ান্ত পর্বের খেলাগুলো সংযুক্ত আরব আমিরাতে। বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশের এটাই শেষ প্রস্তুতি সিরিজ। তাই আনকোড়া ব্ল্যাক ক্যাপসদের বিপক্ষে সিরিজটিকে সিরিয়াসলি নিয়েছেন ডমিঙ্গো। এই সিরিজেই উইকেটরক্ষক হিসেবে মুশফিক ও সোহানকে পরখ করে নিচ্ছেন। যদিও দলে আরও একজন উইকেটরক্ষক আছেন, লিটন দাস। যিনি সাদা পোশাকে টেস্ট ম্যাচে কিপিং করেন। রঙিন পোশাকে সে শুধু ব্যাটিং করেন। অবশ্য লিটন দারুণ একজন ফিল্ডারও।

মুশফিক তার ১৫ বছরের ক্রিকেট ক্যারিয়ারে টি-২০ ম্যাচ খেলেছেন ৮৬টি। মাত্র ৪ ম্যাচে গ্লাভস হাতে উইকেটের পেছনে দাঁড়াননি। ওই চার ম্যাচেই উইকেটের পেছনে দাঁড়িয়েছেন সোহান। ডান হাতি ব্যাটসম্যান ক্যারিয়ারে টি-২০ ম্যাচ খেলেছেন ১৭টি এবং সবগুলোতেই তিনি ছিলেন উইকেটরক্ষক। টাইগারদের হয়ে গত দুটি সিরিজে খেলেছেন তিনি। যদিও সিরিজ দুটি খেলা হয়নি মুশফিকের। ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সিরিজ খেলতে পারেননি মুশফিক বায়োবাবলের শর্তের জন্য। পারিবারিক কারণে জিম্বাবুয়ে সিরিজ না খেলেই ফিরেন দেশে। মুশফিকের মতো সিরিজ দুটি খেলতে পারেননি লিটনও। দুই সিরিজে উইকেটের পেছনে গ্লাভস হাতে ও ব্যাটিংয়ে দুর্দান্ত পারফরমার ছিলেন সোহান। ক্রিকেট বিশ্লেষকদের মতে, এই মুহূর্তে দেশের সেরা উইকেটরক্ষক। দলে তিন উইকেটরক্ষক। যদিও রঙিন পোশাকে গ্লাভস হাতে উইকেটের পেছনে থাকেন মুশফিক ও সোহান। নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে স্কোয়াডে রয়েছেন দুজনেই। এখন প্রশ্ন উঠছে কে দাঁড়াবেন উইকেটের পেছনে? গতকাল তার উত্তর দিয়েছেন টাইগার কোচ ডমিঙ্গো,  ‘এই সিরিজে আমরা উইকেটকিপিংয়ের দায়িত্ব ভাগাভাগি করে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছি। নিশ্চিতভাবেই প্রথম দুই ম্যাচে গ্লাভস হাতে উইকেটের পেছনে দাঁড়াবেন সোহান। মুশফিকও কিপিং করবেন। দুজনকেই দুটি করে ম্যাচে গ্লাভস হাতে দেখা হবে। পঞ্চম ম্যাচে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ওই অপশনগুলো কাভার করা গুরুত্বপূর্ণ। শুরুতেই কিপিং করবেন সোহান।’ মুশফিক ৮৬ ম্যাচে ১২৮২ রানের পাশাপাশি ৩৩ ক্যাচ ও ২৯টি স্ট্যাম্পিং করেন। সোহান ১৭ ম্যাচে ১৪৮ রান করেন এবং ৬ ক্যাচ ও ৫টি স্ট্যাম্পিং করেন।

বিশ্বকাপের স্কোয়াড আগে ঘোষণার ব্যাখ্যায় টাইগার কোচ বলেন, ‘আমার জানা মতে, নিউজিল্যান্ড সিরিজ শেষ হওয়ার এক-দুদিন আগে বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণা করতে হবে। স্কোয়াড কেমন হবে, সে ধারণা আমাদের রয়েছে। ভালো হতো নিউজিল্যান্ড সিরিজের আগে স্কোয়াড ঘোষণা করলে। তাহলে খেলোয়াড়রা নিশ্চিত থাকতেন। মাঠে ফ্রি হয়ে খেলতেন। এখন চাপে থাকবে। কারণ সবার মাথাতেই কাজ করবে স্কোয়াডে সুযোগের বিষয়টি।’

 নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে যে ১৯ সদস্যের স্কোয়াড রয়েছে, সেখান থেকেই কাটছাঁট করে ১৫ সদস্যের বিশ্বকাপ স্কোয়াড করা হবে।