শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ জানুয়ারি, ২০২০ ২২:০০

কাউন্সিলরদের নিয়ে ঝামেলা বাড়ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক

কাউন্সিলরদের নিয়ে ঝামেলা বাড়ছে

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি ভোট উৎসবের বাকি আর মাত্র তিন দিন। শেষ মুহূর্তে জমজমাট নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা। হেভিওয়েট চার মেয়র প্রার্থী ছাড়াও কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর প্রার্থী, তাদের কর্মী-সমর্থকরা সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ঘাম ঝরাচ্ছেন। ভোটারদের মন জয় করতে যাচ্ছেন ঘরে ঘরে। তবে উৎসবের ভোটে শেষ মুহূর্তে বাগড়া দিচ্ছেন কিছু কাউন্সিলর প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা। প্রতিপক্ষ কাউন্সিলর প্রার্থী ও কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়াচ্ছেন। রক্ত ঝরাচ্ছেন দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক মিত্র ও প্রতিপক্ষের। গত কয়েক দিনে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটির কমপক্ষে এক ডজন কাউন্সিলর প্রার্থীর সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মাঠে থাকায় এই সমস্যা বাড়ছে বলে জানা গেছে। বিদ্রোহী প্রার্থীদের কেউ কেউ স্থানীয় প্রভাবশালী কিংবা ক্যাডারভিত্তিক রাজনীতি করার কারণে কোনঠাসা হয়ে পড়ছেন দলীয় প্রার্থীরা।    

গত রবিবার ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৩৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী মেহেরুন নেসা (রেডিও) সমর্থকদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর প্রার্থী ইমতিয়াজ আহমেদ মান্নাফীর (ঘুড়ি) সমর্থকদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। ওয়ারী থানার বনগ্রাম জুকিনগর লেনে ধাওয়া-পালটা ধাওয়াসহ বেশ কয়েক রাউন্ড গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটে। এতে সংঘর্ষে তিনজন আহত হয়েছেন।

গত শুক্রবার ঢাকা দক্ষিণ নির্বাচনী প্রচারণাকে কেন্দ্র করে রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরে আওয়ামী লীগের দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। কামরাঙ্গীরচরের বড়গ্রামে আওয়ামী লীগ মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থী হোসেন গ্রুপ ও বিদ্রোহী প্রার্থী রতন গ্রুপের সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। বিদ্রোহী প্রার্থীর একটি অফিস ভাঙচুর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত রবিবার ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৪৯ নম্বর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের সঙ্গে বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে বিমানবন্দর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতিসহ চারজন আহত হয়েছেন। এ ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সফিউদ্দিন মোল্লা। আর বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন ঢাকা মহানগর উত্তর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান নাঈম। নাঈম বিভিন্ন এলাকা থেকে সন্ত্রাসী ভাড়া করে এনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন বলে অভিযোগ আওয়ামী লীগ প্রার্থীর। গত বুধবার উত্তর সিটি করপোরেশনের ৪২ নম্বর ওয়ার্ডের বেরাইদে দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে উভয়পক্ষের কমপক্ষে নয়জন আহত হয়েছেন। আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী বাড্ডা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম (লাটিম মার্কা) এবং আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আইয়ুব আনছার মিন্টুর (ঘুড়ি মার্কা) সমর্থকদের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। দুইপক্ষ একে অপরের আত্মীয়। তবে নির্বাচন ঘিরে তাদের একপক্ষ লাটিম ও অপরপক্ষ ঘুড়ি প্রতীকের পক্ষে প্রচারণা চালানোর সময় সংঘর্ষ হয়।


আপনার মন্তব্য