৪ আগস্ট, ২০২২ ১৫:৫৩

‘জনক রাজ’ ধান বিঘা প্রতি ফলন ৪২ মণ, দাবি সংশ্লিষ্টদের

নিজস্ব প্রতিবেদক,বগুড়া

‘জনক রাজ’ ধান বিঘা প্রতি ফলন ৪২ মণ, দাবি সংশ্লিষ্টদের

বগুড়ায় ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ারের বীজ ‘জনক রাজ’ বিঘা প্রতি ফলন দেবে ৪০ থেকে ৪২ মণ ধান এমন দাবিই করেছে সংশ্লিষ্টরা। মাঠ পর্যায়ে ‘জনক রাজ’ ধান চাষ শুরু হয়েছে। এর আগে ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ার ২০২০ সালে জেলার শেরপুরের বালেন্দা গ্রামে ১০০ বিঘা জমির উপর গড়ে তোলে পৃথিবীর সবেচেয়ে বড় শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি যা গিনেজ ওয়ার্ল্ডে রেকর্ড করে।

২০০২ সালে কৃষিবিদ কেএসএম মোস্তাফিজুর রহমান প্রতিষ্ঠা করেন ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ার। পরে কাহালুর দরগাহাটে ১৩ একর জমির ওপর বীজ প্রক্রিয়াজাত কেন্দ্র গড়ে তোলেন। এই কেন্দ্রে হাজার হাজার টন বীজ প্রক্রিয়াজাত, সংরক্ষণ ও প্যাকেটজাতকরণ করা হয়। 

প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারাদের দাবি, দেশের সবেচেয়ে বেশি ফলনশীল হাইব্রিড ধান ‘জনক রাজ’। এই ধানের গুরুত্ব হলো ধান চাষের পর এর শীস বড় হবে। ধানের ফলন স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি হবে। কৃষক ধান বিক্রি করে লাভবান হবেন। কৃষকদের লাভবানের বিষয়টি মাথায় রেখেই হাইব্রিড ধান জনক রাজ বাজারজাত করা হচ্ছে।
 
বৃহস্পতিবার কাহালুর দরগাহাট এলাকায় ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ারের বীজ প্রক্রিয়াজাত, সংরক্ষণ ও প্যাকেটজাতকরণ প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনে গেলে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানানো হয়।

এসময় ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ারের প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক কৃষিবিদ কেএসএম মোস্তাফিজুর রহমান ১৩ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত এই কেন্দ্রের বিভিন্ন বীজাগার ও  প্রকল্প ঘুরিয়ে দেখান। পরে সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে তাদের কাজ ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সবার মাঝে উপস্থাপন করা হয়।


বিডি প্রতিদিন/নাজমুল

এই রকম আরও টপিক

সর্বশেষ খবর