শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ জানুয়ারি, ২০২০ ১৩:৩১
আপডেট : ১৯ জানুয়ারি, ২০২০ ১৩:৫১

ছাত্রী ধর্ষণের পর যৌনপল্লীতে বিক্রির পরিকল্পনা, ধর্ষক গ্রেফতার

সিলেট ব্যুরো

ছাত্রী ধর্ষণের পর যৌনপল্লীতে বিক্রির পরিকল্পনা, ধর্ষক গ্রেফতার
প্রতীকী ছবি

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে অভিযান চালিয়ে অপহরণ করে ধর্ষণের অভিযোগে জুবায়ের আহমদ (৪০) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাপিড একশন ব্যাটেলিয়ন র‍্যাব-৯ সিলেটের একটিদল। শুক্রবার রাতে নীলফামারী জেলার কিশোরগঞ্জ থানা পুলিশের কাছে অপহরণকারী ধর্ষক ও অপহৃত স্কুলছাত্রীকে হস্তান্তর করা হয়। অপহরণকারী ধর্ষক মাইক্রোবাস চালক।

শনিবার রাতে র‍্যাব-৯ এর অপারেশন অফিসার সহকারী পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন জানান, মুঠোফোনে পরিচয়ের সূত্র ধরে গত ৯ জানুয়ারি নীলফামারী জেলার কিশোরগঞ্জ থানা সদর এলাকা থেকে স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ করে সিলেট নিয়ে আসে অপহরণকারী জুবায়ের।

১০ জানয়ারি সিলেটের শাহপরান এলাকায় রাত্রিযাপন করে তরুণীকে প্রথমে ধর্ষণ করা হয়। পরদিন থেকে একাধিক বার জগন্নাথপুর উপজেলার মহিষাকোনা গ্রামে নিয়ে ধর্ষণ করে। কিশোরগঞ্জ থানা পুলিশ ও অপহৃত তরুণীর পরিবারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমরা অভিযান চালিয়ে অপহরণকারীকে গ্রেফতার ও অপহৃত স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়। শুক্রবার রাতে তাদেরকে সিলেট র‍্যাব কার্যালয় থেকে কিশোরগঞ্জ পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

তিনি জানান, গ্রেফতারের পর ধর্ষণকারী জুবায়ের আহমদ প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মেয়েটিকে ধর্ষণের কথা শিকার করেছে। দালালদের মাধ্যমে সেই ছাত্রীকে যৌনপল্লীতে বিক্রির করার পরিকল্পনা ছিল তার।

জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, এ বিষয়টি বিস্তারিত আমার জানা নেই। তবে অভিযানকালে র‍্যাব-৯ আমাদের ডিউটি অফিসারের সাথে যোগাযোগ করেছেন।

ডিউটি অফিসার এসআই মনির জানান, শুক্রবার রাতে সিলেট র‍্যাব-৯ এর একদল ফোনে এ বিষয়টি আমাকে অবহিত করে ধর্ষককে গ্রেফতারে সহযোগিতা চান। পরে র‍্যাব-৯ এর লোকজনই ধর্ষণকারী জুবায়েরকে গ্রেফতার ও ধর্ষিতা কিশোরীকে উদ্ধার করেন।

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য