শিরোনাম
প্রকাশ : ৭ মার্চ, ২০২১ ২০:১৬
প্রিন্ট করুন printer

এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

উচ্চ আদালতের আদেশ মন্ত্রণালয়ে, তাই হয়নি শুনানি

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

উচ্চ আদালতের আদেশ মন্ত্রণালয়ে, তাই হয়নি শুনানি

সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে বেঁধে স্ত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় দায়েরকৃত দুই মামলার বিচারকার্য একই আদালতে, একসঙ্গে পরিচালনার নির্দেশ দিয়েছিলেন উচ্চ আদালত। কিন্তু উচ্চ আদালতের এই আদেশ আজ রবিবার পর্যন্ত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে প্রক্রিয়াধীন থাকায় সিলেট নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালে আলোচিত মামলাটির শুনানি হয়নি।

আদেশ আসার পরপরই ট্রাইব্যুনালে বিচার কার্যক্রম শুরু হবে বলে বাদী পক্ষের আইনজীবীদের জানিয়েছেন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহিতুল হক ইনাম চৌধুরী। 

আজ রবিবার সকালে কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে সকল আসামীকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হলেও উচ্চ আদালতের আদেশ না পৌঁছায় শুনানি না করেই পুনরায় তাদের কারাগারে পাঠানো হয়। 

বাদীপক্ষের আইনজীবী প্যানেলের প্রধান শহীদুজ্জামান চৌধুরী জানান, মহানগর দায়রা জজ আদালতে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের সাথে মারধর, ছিনতাই ও চাঁদাবাজির ঘটনায় দায়েরকৃত মামলাটির শুনানির ধার্য তারিখ ছিল ১০ ফেব্রুয়ারি। কিন্তু উচ্চ আদালত ধর্ষণ ও অন্যান্য অপরাধের ঘটনায় দায়েরকৃত দুই মামলা একই আদালতে একই সাথে চলার আদেশ দিলে ধার্য তারিখে শুনানি হয়নি। 

আজ রবিবার মামলার পরবর্তী তারিখ ছিল। কিন্তু উচ্চ আদালতের আদেশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে প্রক্রিয়াধীন আছে। তাই মন্ত্রণালয় থেকে আদেশ আসার পরই উভয় মামলার কার্যক্রম একসাথে শুরু হবে। 

প্রসঙ্গত, গত বছরের ২৫ সেপ্টেম্বর রাতে এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে স্বামীকে আটকে রেখে এক তরুণীকে দল বেঁধে ধর্ষণ করে ছাত্রলীগের ক্যাডাররা। এ ঘটনায় ধর্ষিতার স্বামী বাদী হয়ে মহানগর পুলিশের শাহপরান থানায় ছয়জনের নাম উল্লেখ করে এবং দুজনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা করেন। 

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য