শিরোনাম
প্রকাশ : ১৬ জানুয়ারি, ২০১৭ ২১:৫১

কর্মচারীদের বিক্ষোভের মুখে অবরুদ্ধ কাস্টমসের এসি

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম:

কর্মচারীদের বিক্ষোভের মুখে অবরুদ্ধ কাস্টমসের এসি

কর্মচারীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগে চট্টগ্রাম কাস্টমসের সহকারী কমিশনার (জেটি) আবু হানিফ মো. আহাদকে চারঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখেন সিএন্ডএফ কর্মচারীরা। কাস্টমসের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের দাবি, অনিয়মের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানের কারণেই এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসে দীর্ঘদিন ধরে আনস্টাফিং শাখায় সহকারী কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন আবু হানিফ মো. আহাদ। আজ থেকে তাকে জেটিতে দায়িত্ব দেওয়া হয়। আজ সকালে চট্টগ্রাম বন্দর অভ্যন্তরে সহকারী কমিশনার (জেটি) কার্যালয়ে দায়িত্ব পালন করতে যান। কার্যালয়ে যাওয়ার কিছুক্ষণ পর থেকেই বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সহকারী কমিশনার ও সিএন্ডএফ কর্মচারীদের মধ্যে বাকবিতন্ডা শুরু হয়। এসময় তারা সহকারী কমিশনার আহাদের নাম ফলক ভাঙচুর ও কার্যালয়ে ইট-পাটকেল ছুড়ে।
পরিস্থিতি বন্দর নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে চট্টগ্রাম কাস্টমসের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। চারঘণ্টা অবরুদ্ধ থাকার পর বিকেলে ৩টায় এসি আহাদ কার্যালয় থেকে বের হন। পরে তার পরিবর্তে দুইজন কর্মকর্তাকে এই শাখায় দায়িত্ব দেওয়া হয়।

সহকারী কমিশনার আবু হানিফ মো.আহাদ চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসে যোগ দেওয়ার পর থেকেই সিএন্ডএফ কর্মচারী ও জেটি সরকারদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে আসছেন অভিযোগ করে সিএন্ডএফ কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি কাজী খায়রুল বাশার মিল্টন বলেন, সিএন্ডএফ কর্মচারীদের দীর্ঘদিনের পুঞ্জিভূত ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে সোমবার।
এদিকে কাস্টমসের যুগ্ম কমিশনার মো. রইচ উদ্দিন বলছেন, সোমবার অনেকগুলো কাজ জমে যাওয়ার কারণে উত্তপ্ত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। পরে কাজ দ্রুত সম্পন্ন করতে দুইজন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেওয়া হলেও এসি আহাদকে প্রত্যাহার করা হয়নি।

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার

 


আপনার মন্তব্য