Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১২:৫৬
আপডেট : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৫:০১

উচ্ছেদ সাঁওতালদের বিষয়ে জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট

অনলাইন ডেস্ক

উচ্ছেদ সাঁওতালদের বিষয়ে জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট

গোবিন্দগঞ্জে উচ্ছেদ হওয়া সাঁওতালদের পুনর্বাসনে কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তা গাইবান্ধার জেলা প্রশাসক ও গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট। এ ব্যাপারে আগামী ৩০ দিনের মধ্যে আদালতকে প্রতিবেদন আকারে জানাতে বলা হয়েছে।

গাইবান্ধার ঘটনায় আলামত নষ্ট নিয়ে জারি করা রুল শুনানিতে স্বত‍ঃপ্রণোদিত হয়ে বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চ বুধবার এ আদেশ দেন। আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে সুপ্রকাশ দত্ত অমিত এবং রংপুর চিনিকলের পক্ষে শুনানি করেন এ এম মাসুম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস।

নোটিশে বলা হয়, ৬ নভেম্বর সাঁওতালদের ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে, সাঁওতালদের হত্যা করে তাদের উচ্ছেদ করা হয়েছে বলে পত্রপত্রিকায় এসেছে। কিন্তু ৮ তারিখ থেকে আপনি (চিনিকলের এমডি) উচ্ছেদকৃত এলাকায় ট্রাক্টর চালিয়ে ঘটনার আলামত নষ্ট করেছেন। সরকারি কর্মচারী হিসেবে আলামত সংরক্ষণ ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সহায়তা করা আপনার দায়িত্ব। কিন্তু আপনি এবং অন্য কর্মকর্তারা ক্রাইম সিন এলাকা থেকে আলামত অদৃশ্য করে ফৌজদারি অপরাধ করেছেন। এটা দণ্ডবিধি ২০১ ধারায় ফৌজদারি অপরাধ। নোটিশে আরও বলা হয়, সাক্ষ্য (আলামত) ছাড়া ওই ঘটনায় নিহত শ্যামল হেমব্রম ও মঙ্গল মার্ডির হত্যায় ন্যায়বিচারের নিশ্চিত হওয়া কষ্টকর হবে। নোটিশের জবাব না পাওয়ায় তিনি হাইকোর্টে রিট করলে ৮ জানুয়ারি রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

বিডি প্রতিদিন/ সালাহ উদ্দীন

আপনার মন্তব্য