১০ মে, ২০২২ ১৮:৫৮

গন্ডগোলে পণ্ড সন্ধানীর ভোট

নিজস্ব প্রতিবেদক

গন্ডগোলে পণ্ড সন্ধানীর ভোট

বাকবিতন্ডা, হাতাহাতিতে পণ্ড স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সন্ধানীর ভোট। পাঁচ মাস ধরে নেতৃত্বের দ্বন্দ্বে অচল স্বেচ্ছায় রক্তদান ও মরণোত্তর চক্ষুদান নিয়ে কাজ করা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সন্ধানী। সমস্যা সমাধানে আজ ভোটের দিন নির্ধারণ করেছিল সন্ধানীর অচল অবস্থা নিরসন কমিটি। কিন্তু দুই পক্ষের কর্মকাণ্ডে আবারো তালা পড়েছে সন্ধানী ভবনে।

সন্ধানী সূত্রে জানা যায়, আজ বেলা ৩টা-সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত ভোট অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিলো। রাজধানীর নীলক্ষেতে সন্ধানী ভবনে এ ভোটের আয়োজন করা হয়েছিল। সন্ধানীর ২০টি ইউনিট থেকে তিনজন করে ভোটার ভোটে অংশগ্রহণ করার কথা ছিল। বাকী ১৪টি ইউনিটের সদস্যরা ভোটার হওয়ার শর্ত পূরণ করতে না পারায় ভোট দিতে পারবেন না বলে জানানো হয়েছিল। কিন্তু সকালে সন্ধানী ভবনে একপক্ষ অবস্থান নিয়ে অন্য পক্ষকে ঢুকতে দেয়নি। এরপর কমিটির সহায়তায় তারা ভবনে প্রবেশ করে। পরে দুই পক্ষকে নিয়ে অচল অবস্থা নিরসন কমিটি মিটিংয়ে বসলে শুরু হয় বাকবিতণ্ডা। এক পর্যায়ে উত্তপ্ত কথাবার্তায় হাতাহাতিতে লিপ্ত হয় দুই পক্ষ। পরে একপক্ষ ভোট বর্জন করে বের হয়ে যায়।

এ সময় সিনিয়র সন্ধানীয়ান অচল অবস্থা নিরসন কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ডা. মো. তোসাদ্দেক হোসেন সিদ্দিকী জামাল, সদস্য সচিব অধ্যাপক ডা. মনিলাল আইচ লিটু, বিএসএমএমইউর সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান, অধ্যাপক ডা. এ কে এম সালেক, সংসদ সদস্য ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না, বিএসএমএমইউর ট্রেজারার অধ্যাপক ডা. মো. আলী আসগর মোড়ল, সন্ধানীর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য অধ্যাপক ডা. মোশাররফ হোসেন মুক্ত, ডা. আব্দুল কাইয়ুম উপস্থিত ছিলেন। 

জানা যায়, দেশের স্বাস্থ্য খাতের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সন্ধানী। ১৯৭৭ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে যাত্রা শুরু হয় সংগঠনটির। ধীরে ধীরে দেশে স্বেচ্ছায় রক্তদান ও মরণোত্তর চক্ষুদান আন্দোলনের পথিকৃৎ হয়ে ওঠে সংগঠনটি। কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ অর্জন করে স্বাধীনতা পদক। 

বিডি প্রতিদিন/এএ

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর