শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৩০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৯ নভেম্বর, ২০১৯ ২২:৪০

জমি জটিলতায় পিছিয়ে গেল রামেবির কার্যক্রম

উপাচার্যের একক সিদ্ধান্ত দায়ী

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

জমি জটিলতায় পিছিয়ে গেল রামেবির কার্যক্রম

রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (রামেবি) নিয়ে অনেক আশা ছিল এ অঞ্চলের মানুষের। এ বছরের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু জমি অধিগ্রহণেই আটকে গেল রামেবির কার্যক্রম। গত ১৬ নভেম্বর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব রামেবির জন্য নির্ধারিত জমি দেখতে এসে ক্ষুব্ধ হন। এরপর তিনি অন্য জায়গায় জমি অধিগ্রহণের জন্য নির্দেশনা দেন। যে জমিটি উপাচার্য ডা. মাসুম হাবিব পছন্দ করেছিলেন, সেটি সরকারের কাছ থেকে বরাদ্দ নিয়ে বসবাস করছে শতাধিক পরিবার। এ কারণে জমি অধিগ্রহণ করতে গিয়ে আইনি সমস্যায় পড়ে জেলা প্রশাসন। সেজন্য জমি অধিগ্রহণের কার্যক্রম শুরু করেনি জেলা প্রশাসন। মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম পিছিয়ে যাওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন চিকিৎসক নেতা ও সিন্ডিকেটের সদস্যরা। রাজশাহী স্বাচিপের সভাপতি ডা. চিন্ময় কান্তি জানান, শুধু উপাচার্যের অদক্ষতার কারণে বিশ্ববিদ্যালয়টির কার্যক্রম পিছিয়ে গেল। এখন নতুনভাবে জমি খুঁজে, অধিগ্রহণ, ভবন নির্মাণ করে কার্যক্রম শুরু করতে অনেকটা সময় বেশি ব্যয় হবে। রামেবি  সিন্ডিকেটের সদস্য ডা. নওশাদ আলী জানান, যে জমিটি দেখা হয়েছিল, সেটি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় নাকচ করে দিয়েছে। এখন নতুন করে আবার জমি দেখতে হবে। এতে আবারও অনেকটা সময় পিছিয়ে গেল কার্যক্রম। জেলা প্রশাসক হামিদুল হক জানান, ভূমির শ্রেণির কারণে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য বড়বনগ্রাম মৌজার জমি অধিগ্রহণ করা হচ্ছে না। স্বাস্থ্য সচিব অন্যত্র জমি খুঁজতে বলেছেন। তবে এ ব্যাপারে কথা বলতে রামেবির উপাচার্য ডা. মাসুম হাবিবের মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর