শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১ এপ্রিল, ২০২০ ০১:৩০

১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রির সিদ্ধান্ত সরকারের

নিজস্ব প্রতিবেদক

১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রির সিদ্ধান্ত সরকারের

দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে সরকার দরিদ্র ও নিম্নআয়ের মানুষের জন্য ১০ টাকা কেজি দরে খোলাবাজারে (ওএমএস) চাল বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রাথমিকভাবে দেশের সবগুলো সিটি করপোরেশন ও পৌরসভায় এই কার্যক্রম চালু করবে সরকার। খুব দ্রুততম সময়ের মধ্যে এই কার্যক্রম চালু হবে বলে খাদ্য অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সারা দেশে অঘোষিত লকডাউনের কারণে সবচেয়ে বেশি সংকটে আছে নিম্নআয়ের দরিদ্র ও দিনমজুর মানুষেরা। এই অবস্থায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীর কোনো মানুষ যেন অভুক্ত না থাকে সে লক্ষ্যে সরকার ওএমএস চালুর এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গতকালই সরকারের উচ্চপর্যায় থেকে খাদ্য অধিদফতরকে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে। জানা গেছে, উপরের নির্দেশনা পাওয়ার পর প্রকৃত উপকারভোগীদের কাছে চাল পৌঁছানোর কর্মকৌশল ঠিক করছে খাদ্য অধিদফতর। খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি) সারোয়ার আলম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ১০ টাকা কেজিতে চাল বিক্রির একটি সিদ্ধান্ত সরকার নিয়েছে। তিনি জানান, এখন জেলা প্রশাসন, সিটি করপোরেশন, ত্রাণ মন্ত্রণালয়, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন ব্যক্তি উদ্যোগের ত্রাণ কার্যক্রম চলছে। এসব ত্রাণ যারা পাচ্ছেন তাদের বাইরে যারা আছেন সেই লোকজনকে টার্গেট করে ওএমএস চালু করা হবে। যাতে একই ব্যক্তি বারবার সুবিধা না পান এবং কেউ যেন বাদ না পড়ে। তিনি বলেন, আমরা কর্মকৌশল ঠিক করছি। মন্ত্রণালয়ের আদেশ পাওয়ার পরপরই এই কার্যক্রম শুরু করা হবে। সূত্র জানায়, আগামী সপ্তাহে ডিলারদের মাধ্যমে ওএমএস কার্যক্রম চালু হতে পারে। বর্তমানে ওএমএস-এর মাধ্যমে ৩২ টাকা কেজি দরে চাল ও ১৮ টাকা কেজি দরে আটা বিক্রি করা হচ্ছে। কিন্তু বাজারে মোটা চালের স্বাভাবিক দাম ও ওএমএসের চালের দাম প্রায় সমান হওয়ায় গত বেশ কিছুদিন ধরে ওএমএস-এ চাল বিক্রি বন্ধ রয়েছে। সংশ্লিষ্টরা জানান, ১০ টাকা কেজি দরে ওএমএস কার্যক্রম চালু করার আগে তারা কর্মকৌশল ঠিক করছেন, যাতে করে একই ব্যক্তি একাধিকবার লাইনে না দাঁড়ায়। যারা বিভিন্নভাবে ত্রাণসামগ্রী পাচ্ছেন তারাও যেন ওএমএস-এর চাল নিতে বারবার না আসেন। এ জন্য জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতা নেওয়া হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর