বুধবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা

পূর্বাচলে সাতটি সেক্টরে ভবন নির্মিত হবে পিপিপির মাধ্যমে

রাজউক ৪ সেক্টরে পাইলট প্রজেক্ট বাস্তবায়ন করবে

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর পূর্বাচলে ২০৫.০৫১ একর বরাদ্দ জমিতে উচ্চ আয়ের লোকদের জন্য তিনটি হাইরাইজ অ্যাপার্টমেন্ট ব্লক ও মধ্যম ও নিম্ন আয়ের লোকদের জন্য ৯টি ব্লকে ভবন নির্মাণের জন্য ফিজিবিলিটি স্টাডি, নকশা, ডিজাইন ড্রয়িং ও ডিপিপি প্রণয়নের কাজ চলছে। এর মধ্যে উচ্চ আয়ের হাইরাইজ অ্যাপার্টমেন্ট ব্লকে প্রাইভেট পাবলিক পার্টনারশিপ (পিপিপি)-এর মাধ্যমে তিন নম্বর সেক্টরে এবং রাজউক কর্তৃক দুই ও ত্রিশ নম্বর সেক্টরে ভবন নির্মাণের সিদ্ধান্ত হয়েছে। একইভাবে নিম্ন আয়ের লোকদের জন্য নয়টি অ্যাপার্টমেন্ট ব্লকের মধ্যে ছয়টি (সেক্টর-৮, ৯, ১০, ১৩, ২৫ ও ২৯) পিপিপির মাধ্যমে এবং রাজউকের মাধ্যমে তিনটি অ্যাপার্টমেন্ট ব্লকে (সেক্টর-৩, ৪ ও ১৮) ডিপিপি প্রণয়ন করে পাইলট প্রজেক্ট হিসেবে বাস্তবায়নের কাজ চলছে। জাতীয় সংসদ ভবনে গতকাল অনুষ্ঠিত ‘গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ১৭তম বৈঠকে এসব তথ্য জানানো হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। বৈঠকে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ এবং আনোয়ারুল আশরাফ খান অংশগ্রহণ করেন। বৈঠকের কার্যপত্র থেকে জানা যায়, কমিটির সভাপতি জাতীয় গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষের বর্তমান পারফরমেন্সে হতাশা ব্যক্ত করে সরকারের পরিকল্পনা বাস্তবায়নে ‘ব্যর্থ’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন। সংসদের গণসংযোগ বিভাগ জানায়, বৈঠকে চট্টগ্রাম মহানগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে খালগুলোর আবর্জনা দ্রুত পরিষ্কারের জন্য চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করার সুপারিশ করেছে। একইসঙ্গে এ জন্য স্থায়ী জনবল নিয়োগের সুপারিশ করা হয়। কেউ যেন আবর্জনা না ফেলতে পারে সে জন্য খালে আবর্জনা ফেললে জরিমানা আদায়ের সুপারিশ করে কমিটি।

এ ছাড়া চট্টগ্রাম নগরীতে পুরাতন জরাজীর্ণ ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের তালিকা করে  সেগুলো দ্রুত অপসারণের জন্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করে কমিটি।

বৈঠকে গণপূর্ত অধিদফতর, রাজউক, জাতীয় গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষ, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ, নগর উন্নয়ন অধিদফতর, স্থাপত্য অধিদফতর এবং হাউজিং অ্যান্ড বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউটের চলমান প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা করা হয়।

বৈঠকের শুরুতে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের স্মরণ করে এক মিনিট দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন ও তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

বৈঠকে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব, গণপূর্ত অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ বিভিন্ন সংস্থার প্রধানসহ সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর