শিরোনাম
প্রকাশ : ৩১ মার্চ, ২০২০ ১৭:০৫

চট্টগ্রামে পাঁচটি আইসিইউ বরাদ্দ, ৩৩ নমুনায় করোনা নেগেটিভ

রেজা মুজাম্মেল, চট্টগ্রাম:

চট্টগ্রামে পাঁচটি আইসিইউ বরাদ্দ, ৩৩ নমুনায় করোনা নেগেটিভ

করোনাভাইরাস সংক্রমণ হওয়ার পর থেকে চিকিৎসক, প্রশাসন এবং চট্টগ্রামবাসীর শঙ্কা ছিল একটিই- চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত হলে অতি প্রয়োজনীয় সেবা (ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট) আইসিইউ না থাকা। কারণ সরকার চট্টগ্রামে জেনারেল হাসপাতাল ও ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসা স্থান নির্ধারণ করে দিয়েছে। কিন্তু দুটির কোনটিতেই আইসিইউ সুবিধা নেই। ফলে স্বাস্থ্য ও জেলা প্রশাসন এ নিয়ে চরম দুশ্চিন্তায় ছিল। অবশেষে সে দুশ্চিন্তা কেটেছে। সরকার জেনারেল হাসপাতালের জন্য এই করুণ মুহুর্তে পাঁচটি আইসিইউ শয্যা বরাদ্দ দিয়েছে। শীঘ্রই এগুলো স্থাপনের কাজ শুরু হবে। অন্যদিকে, চট্টগ্রাম বিআইটিআইডিতে গত পাঁচদিনে ৩৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে সবই নেগেটিভ আসছে। তাছাড়া প্রশাসনের তদারকিতে হোম কায়ারেন্টাইনে থাকা ৯৭৩ জনের মধ্যে ৪৩ জনকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।  

জানা যায়, চট্টগ্রামে সরকারিভাবে আইসিইউ আছে কেবল চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে- ১০টি। এর বাইরে প্রাইভেট হাসপাতালগুলোতে প্রায় ১০০টি শয্যা থাকলেও সেগুলো ব্যয়বহুল। ফলে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে আইসিউ সেবা নিয়ে চরম শঙ্কায় ছিল চট্টগ্রামবাসী। বিলম্বে হলেও সরকারিভাবে পাঁচটি শয্যা পাওয়া গেছে। তাছাড়া, বেসরকারি হাসপাতালের মধ্যে নগরীর কাতালগঞ্জের পার্কভিউ হসপিটাল, জিইসি মোড়ের চট্টগ্রাম সেন্ট্রাল মেডিকেল সেন্টার, রয়েল হসপিটাল, এশিয়া হাসপাতাল এবং পাহাড়তলীর ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হবে বলে জানা যায়। 

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, ‘সরকার চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে পাঁচটি শয্যার একটি আইসিইউ ইউনিট প্রতিষ্ঠা করবে। এসব শয্যা করোনা আক্রান্ত রোগীর জন্য বরাদ্দ রাখা হবে। চট্টগ্রামের চিকিৎসা ব্যবস্থায় এটি নতুন মাত্রা যোগ করল। সরকারি এই হাসপাতালের পাশাপাশি কিছু বেসরকারি হাসপাতালেও আইসিইউ ব্যবস্থা করা হয়েছে।’ তিনি বলেন, চট্টগ্রামে মোট ৯৭৩ জন প্রবাসী হোম কোয়ারেন্টাইনে ছিল। এর মধ্যে ৪৩ জনের ১৪ দিন সময় শেষ হওয়ায় তাদের স্বাভাবিক জীবনে চলে যেতে বলা হয়েছে। বর্তমান ৯৩০ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন। তাছাড়া বিআইটিআইডিতে গত পাঁচদিনে ৩৩ জনের নমুন সংগ্রহ করা হয়েছে। সবগুলো রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। সর্বশেষ মঙ্গলবারও তিনটি নমুন পরীক্ষা করা হয়েছে। এটি আমাদের জন্য বড় সুখের খবর।’

বিডি প্রতিদিন/মজুমদার


আপনার মন্তব্য