শিরোনাম
প্রকাশ : ৩১ মার্চ, ২০২০ ২৩:০১

চুয়াডাঙ্গায় অনেকেই পাননি খাদ্য সামগ্রী

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি :

চুয়াডাঙ্গায় অনেকেই পাননি খাদ্য সামগ্রী

জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ শুরু হলেও এখনো অনেক পরিবার সরকারি সহায়তা থেকে বঞ্চিত। এখনো হাজার হাজার পরিবার খাদ্য সামগ্রীর জন্য অপেক্ষায়। তাদের কাছে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছায়নি। চুয়াডাঙ্গা শহরের মুসলিমপাড়ার মৃত মহর আলী তিন কন্যা সন্তান রেখে মারা গেছেন। স্ত্রী পারভীন খাতুনের দিন চলে অনাহারে অর্ধাহারে। পারভীন খাতুন বলেন, শুনলাম সরকার থেকে খাবার দিচ্ছে। আমি এখনো পায়নি। একই কথা বলেন তার প্রতিবেশি মাজেদা খাতুন। তিনিও সরকারি সহায়তা নিতে আগ্রহী। বাইরে বের হওয়া নিষেধ বলে কোথাও যেতেও পারছেন না। কেউ তার বাড়িতে এসেও কোনো খাদ্য সামগ্রী দিয়ে যায়নি। করোনাভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত সদর উপজেলার আলোকদিয়া ইউনিয়ন কমিটির আহবায়ক ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বিকাশ কুমার সাহা জানান, তালিকা অনুযায়ী তিনি নিজে বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছেন। বিতরণ করতে গিয়ে বোঝা যাচ্ছে চাহিদা রয়েছে আরো অনেক বেশি। আলোকদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ইসলাম উদ্দিন বলেন, আমার ইউনিয়নেই এখনো অনেক মানুষ খাদ্য সামগ্রীর জন্য অপেক্ষায় আছে। সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ সাদিকুর রহমান বলেন, মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত ২৩ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করা হয়েছে। প্রতি পরিবারে ১০ কেজি করে চাল ও অন্যান্য সামগ্রী দেওয়া হচ্ছে। অনেকেই একনো পাননি এটা ঠিক, তবে বিতরণ অব্যাহত আছে।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য