৪ জুলাই, ২০২১ ১৪:৪৮

‘আমরা তাড়ার মধ্যে আছি, মানুষ কফিনের জন্য অপেক্ষা করছে’

অনলাইন ডেস্ক

‘আমরা তাড়ার মধ্যে আছি, মানুষ কফিনের জন্য অপেক্ষা করছে’

বিশ্বজুড়ে নতুন করে ত্ণ্ডব শুরু করেছে করোনাভাইরাস। আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। বিপর্যস্ত দেশগুলোর মধ্যে ইন্দেনেশিয়া অন্যতম। করোনা সংক্রমণের কারণে দেশটিতে সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত কফিন ঘষা ও রঙের কাজ করছেন সুহেরমান ও তার সহকর্মীরা।ইন্দোনেশিয়ার জনবহুল দ্বীপ জাভা ও পর্যটন কেন্দ্র বালির কিছু ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সীমিত পরিসরে চালু থাকলেও সুহেরমানের প্রতিষ্ঠান চলছে পুরোদমে। কারণ, করোনায় মৃতের সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে, তাই দাফনের জন্য অনেক কফিনের প্রয়োজন।

সুয়েরমান বলেন, ‘আমরা তাড়ার মধ্যে আছি। মানুষ কফিনের জন্য অপেক্ষা করছে, তাই আমাদের দ্রুত কাজ করতে হচ্ছে। মৃতের পরিবাররা অপেক্ষা কররছে।’

তিনি বলেন, ‘কোভিড-১৯ মহামারির আগে আমাদের এতো পরিশ্রম করতে হয়নি। প্রতিদিন কয়টি কফিন লাগবে সেই টার্গেটও আমাদের ছিল না। কিন্তু আমাদের এখন চাহিদা পূরণ করতে হবে।’

জাবার উত্তরপশ্চিমে রাজধানী জাকার্তায় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার কর্মীরা চাপের মুখে রয়েছেন। নতুন তৈরি করা কফিনগুলো ট্রাকে তুলে দ্রুত শহরের হাসপাতালগুলোর আশেপাশে পাঠানো হচ্ছে। 

কাজের চাপ বেড়ে যাওয়ায় সুয়েরমান এখন অন্য মাসের তুলনায় ৩০ ডলার করে বেশি পারিশ্রমিক পাচ্ছেন। তবে এতে তিনি সন্তুষ্ট না।

তার ভাষ্য, ‘আয় কমে গেলে আমার খারাপ লাগবে না। আমি শুধু চাই, এই কোভিড যেন চলে যায়। এই পরিবারগুলোর জন্য আমি খুব দুঃখ অনুভব করছি।’

সূত্র: আল-জাজিরা। 


বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ

এই রকম আরও টপিক

এই বিভাগের আরও খবর