২৯ জুলাই, ২০২১ ০০:৩৪

কিশোরগঞ্জে আরও ১৩২ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু ৫

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

কিশোরগঞ্জে আরও ১৩২ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু ৫

প্রতীকী ছবি

কিশোরগঞ্জে করোনায় নতুন করে (বুধবার রাত ৯টা পর্যন্ত) ১৩২ জনের করোনা শনাক্ত এবং ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৮ হাজার ৭১৪ জন এবং মোট মৃত্যুবরণ করেছেন ১৪৭ জন। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ১৬ জন, হোসেনপুরে ৯, করিমগঞ্জে ৬, পাকুন্দিয়ায় ১২, কটিয়াদীতে ২২, কুলিয়ারচরে ৪, ভৈরবে ৩১, নিকলীতে ৪, বাজিতপুরে ২৫, ইটনায় ১ ও অষ্টগ্রামে ২ জন রয়েছেন।

সিভিল সার্জন ডা. মুজিবুর রহমান বুধবার রাত ১০টার দিকে এ তথ্য জানান। তিনি আরও জানান ২৪, ২৫, ২৭ ও ২৮ জুলাই (আংশিক) কিশোরগঞ্জ শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আরটি পিসিআর ল্যাব হতে (প্রি আইসোলেশনে ভর্তিকৃত জরুরী রোগীসহ) ১৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৭২ জনের করোনা শনাক্ত হয়।

এদিকে ২৭ জুলাই বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আরটি-পিসিআর ল্যাবে ১০৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১২ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এ ছাড়া কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ৩২ জন, হোসেনপুরে ৪৬, করিমগঞ্জে ১৫, পাকুন্দিয়ায় ৩৮, কুলিয়ারচরে ৬, ভৈরবে ২, নিকলীতে ৩, বাজিতপুরে ২১ ও ইটনায় ১৭ জনসহ মোট ১৮০ জনের রেপিড এন্টিজেন টেস্টে ৪৮ জনের করোনার উপসর্গ পাওয়া যায়।

অপরদিকে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন ৩৮ জন। সুস্থ হয়ে ছাড়পত্র পেয়েছেন ২৫ জন এবং আইসিইউতে ভর্তি রয়েছেন ৬ জন। এ হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৫ জন। কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ৬৮ বছর বয়সী একজন নারী, কুলিয়ারচর উপজেলার ৮০ বছর বয়সী একজন পুরুষ, কটিয়াদী উপজেলার ৭০ বছর বয়সী একজন পুরুষ এবং বাজিতপুর উপজেলার ৮০ ও ৪০ বছর বয়সী দুজন পুরুষ মঙ্গলবার শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মৃত্যুবরণ করেছেন মোট ১৪৭ জন।

সিভিল সার্জন আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় করোনা থেকে সুস্থ হন ৮৬ জন। এ পর্যন্ত জেলায় মোট ৬ হাজার ৪৫০ জন সুস্থ হয়েছেন। বর্তমানে জেলায় সর্বেমোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২ হাজার ১১৭ জন। এর মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ৮৭০ জন, হোসেনপুরে ১৫২ জন, করিমগঞ্জে ৪৪ জন, তাড়াইলে ৩০ জন, পাকুন্দিয়ায় ২০৮ জন, কটিয়াদীতে ৩০৭ জন, কুলিয়ারচরে ৫৯ জন, ভৈরবে ২২৩ জন, নিকলীতে ৩৩ জন, বাজিতপুরে ১১৯ জন, ইটনায় ৩২ জন, মিঠামইনে ২৪ জন ও অষ্টগ্রামে ১৬ জন।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে/ আইসোলেশনে রয়েছেন ২ হাজার ৩৫ জন। আর হাসপাতাল আইসোলেশনে রয়েছেন ৮২ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় টিকার জন্য রেজিস্ট্রেশন করেন ৫ হাজার ৭০৬ জন। গত ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত রেজিস্ট্রেশন করেছেন ১ লাখ ৮৭ হাজার ৬২৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সাইনোফার্ম ভ্যক্সিনের প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৩ হাজার ৪৮৩ জন এবং দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ১০০ জন। গত ১৯ জুন থেকে সিনোফার্ম ভ্যাক্সিনের প্রথম ডোজ টিকা নিয়েছেন মোট ৩৫ হাজার ৬৭৫ জন এবং দ্বিতীয় ডোজ টিকা নিয়েছেন ৬৮২ জন। গত ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত কোভিশিল্ড ভ্যাক্সিনের প্রথম ডোজ টিকা নিয়েছেন ৭৬ হাজার ৬৬৫ জন এবং মোট দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৫৯ হাজার ৩০৭ জন।

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ

এই বিভাগের আরও খবর