শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:২৮

৩২ বছরেও বাড়েনি ট্রেনের আসন

শ্রীমঙ্গল রেল স্টেশন

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল রেল স্টেশনের আন্ত:নগর ট্রেনের (ডাউন) আসন সংখ্যা বাড়েনি ৩২ বছরেও। পর্যটন শহর শ্রীমঙ্গলের এই রেল স্টেশনটিতে আসন সংকট থাকায় ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন যাত্রীরা। রেল স্টেশন সূত্রে জানা যায়, ১৯৮৬ সালে বরাদ্দ করা আসন দিয়েই চলছে স্টেশনটি। এ স্টেশন থেকে ঢাকাগামী জয়ন্তিকায় ৬৪, উপবনে ৬১, কালনীতে ৫১ ও পারাবত ট্রেনে ১০৫টি আসন বরাদ্দ রয়েছে। আর চট্টগ্রামগামী উদয়নে ৪৫ ও পাহাড়ীকায় আসন বরাদ্দ আছে ৬১টি আসন। অথচ প্রতিদিন এই ছয়টি ট্রেনে এখান থেকে ৬০০ যাত্রী চলাচল করছেন। পরিসংখানে দেখা যায়, ১৯৮৬ সালে শ্রীমঙ্গল উপজেলায় লোকসংখ্যা ছিল প্রায় পৌনে দুই লাখ। ৩২ বছর পর এখন এ উপজেলার লোক সংখ্যা বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে। এছাড়া প্রতি বছর প্রায় পৌনে দুই লাখ পর্যটক এখানে আসছেন। শ্রীমঙ্গল ছাড়াও এই রেল স্টেশনটির ওপর নির্ভরশীল মৌলভীবাজার সদর ও রাজনগরের উপজেলার ট্রেন যাত্রীরা।  শ্রীমঙ্গল স্টেশনের টিকিট বুকিং সহকারী আফিজুল হক বলেন, ‘এ স্টেশনে যাত্রীর চাপ অনেক বেশি। চাহিদানুযায়ী টিকিট দেওয়া যাচ্ছে না। প্রতিদিনই ছয়টি আন্ত:নগর ট্রেনে যাত্রীরা স্ট্যান্ডিং টিকিট কাটছেন।

স্টেশন মাস্টার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘আমরা প্রতি ছয় মাস পর পর আসন সংখ্যা বাড়ানোর জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগে চাহিদাপত্র পাঠিয়ে থাকি। বর্তমানে যে আসন রয়েছে তা ডাবল করে দিলেই আর সংকট থাকবে না।


আপনার মন্তব্য