শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:০৫

বৃষ্টিতে কোটি টাকার শুঁটকি নষ্ট

নোয়াখালী প্রতিনিধি

বৃষ্টিতে কোটি টাকার শুঁটকি নষ্ট

নোয়াখালীর হাতিয়ার নিঝুমদ্বীপে টানা বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে নষ্ট হয়ে গেছে কয়েক কোটি টাকার শুঁটকি। শুধু নষ্টই নয় জোয়ারের পানিতে ভেসে গেছে বিপুল পরমাণ শুঁটকি মাছ। জীবন-জীবিকার একমাত্র সম্বল হারিয়ে দিশাহারা হয়ে পড়েছেন নিঝুমদ্বীপের জেলেরা। স্থানীয় সূত্র জানায়, নিঝুমদ্বীপের মেঘনা নদীতে জেলেদের জালে ধরা পড়ছে এক প্রকার চেউয়া মাছ (স্থানীয়ভাবে চেউয়া মাছ বলে)। এই মাছ সংরক্ষণের কোনো ব্যবস্থা না থাকায় দ্বীপের বন্দরটিলা এলাকাসহ নদীর পাড়ে ও খোলামাঠে শুকিয়ে স্থানীয়ভাবে শুঁটকি উৎপাদন করছেন জেলেরা। গত দুই দিনের ভারী বর্ষণ ও বঙ্গপোসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপের প্রভাবে জোয়ারের পানিতে তালিয়ে গেছে সমুদ্র উপকূল। নদীর পাড়ে ও খোলা মাঠে শুকাতে দেওয়া শুঁটকি পচে নষ্ট ও অনেক শুঁটকি পানিতে ভেসে যায়। নষ্ট শুঁটকির পরিমাণ প্রায় ৫০ হাজার মণ বলে জানান ক্ষতিগ্রস্তরা। যার বাজারমূল্য প্রায় ২ কোটি টাকা।

এই শুঁটকিই ছিল নিঝুমদ্বীপের জেলের রুটি-রুজির একমাত্র মাধ্যম। নিঝুমদ্বীপের আদর্শ গ্রামের বাসিন্দা রাকিব জানান, এখানকার অনেক জেলে দাদন ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে ধার নিয়ে সংসার চালায়। বৃষ্টিতে ও জোয়ারে যাদের শুঁটকি নষ্ট হয়েছে তারা এখন দিশাহারা। নিঝুমদ্বীপ ইউপি চেয়ারম্যান মেহেরাজ হোসেন জানান, এ এলাকার মানুষের জীবন-জীবিকার একমাত্র মাধ্যম মাছ ধরা ও কৃষি। দুই দিনের বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে ইউনিয়নের সব শুঁটকি মহাল ডুবে কোটি কোটি টাকার মাছ নষ্ট হয়েছে। এখানকার জেলেরা দাদন ব্যবসায়ীদের দেনা পরিশোধ ও সংসার চালানো নিয়ে চরম বিপাকে পড়বে।

নোয়াখালী জেলা মৎস কর্মকর্তা ড. মোতালেব হোসেন বলেন, জেলেরা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। উপরের নির্দেশনা অনুযায়ী এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।


আপনার মন্তব্য