শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:১৯

প্রবেশমুখে ময়লার ভাগাড়

বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধি

প্রবেশমুখে ময়লার ভাগাড়
Google News

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদ সড়কের প্রবেশমুখে জমে আছে ময়লার স্তূপ। তা থেকে ছড়াচ্ছে উৎকট গন্ধ। দেড় বছর আগে এ ময়লা অপসারণে সংশ্লিষ্টরা তোড়জোড় শুরু করলেও কাজের কাজ হয়নি কিছুই। এ নিয়ে দফায় দফায় বসে সভা-বৈঠক। তবু দেড় বছরেও অপসারণ হয়নি ময়লার ভাগাড়। এতে অতিষ্ঠ হয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিশ্বনাথের সাধারণ মানুষ। সরেজমিন দেখা যায়, উপজেলার নতুনবাজার গোলচত্বর থেকে খোদ উপজেলা পরিষদ সড়কের প্রবেশ মুখে হাজী মফিজ আলী বালিকা স্কুল অ্যান্ড কলেজের মূল গেইটের সামনের খোলা অংশটিতে এখনো রয়েছে ময়লার ভাগাড়। এই ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে কোমলমতি শিক্ষার্থী, অভিভাবক, পথচারীসহ এলাকাবাসীকে। পাশাপাশি তাদের পড়তে হচ্ছে মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকিতে। জানা যায়, স্থানীয় কতিপয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাসাবাড়ির ময়লা নিয়মিতই এখানে ফেলা হয়। যারা ময়লা রাখেন তাদের উপজেলা প্রশাসন ও কলেজ কর্তৃপক্ষ নিষেধ করলেও কর্ণপাত করেনি কেউ। অনেকে পাল্টা প্রশ্ন করেন দেড় বছরেও ময়লা ফেলার বিকল্প স্থান পাইনি। এখানে না ফেললে, আমরা ময়লা ফেলব কোথায়?  শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়ার পথে ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধে দম বন্ধ হয়ে আসার উপক্রম হয়। বাতাসের মাধ্যমে এই দুর্গন্ধ বিদ্যালয় ক্যাম্পাসেও চলে আসে। অথচ এসব ময়লা-আবর্জনা অপসারণ করা যাদের দায়িত্ব, তারা এখনো নির্বিকার। হাজী মফিজ আলী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ নেহারুন নেছা বলেন, এটা দীর্ঘদিনের সমস্যা। একটু বৃষ্টি হলেই সেখানে অতিরিক্ত দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়। অসুবিধা হয় ক্লাসেও। এই দুর্গন্ধের কারণে শিক্ষার্থীদের নানাবিধ রোগে আক্রান্ত হওয়ারও রয়েছে ঝুঁকি। বিশ্বনাথ সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছয়ফুল হক বলেন, গেল কদিন আগে নবগঠিত বিশ্বনাথ পৌরসভার প্রথম সভায় ফের এ বিষয়টি নিয়ে কথা হয়েছে।

 পরবর্তী সভায় ময়লা অপসারণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা রয়েছে। এ বিষয়ে কথা হলে বিশ্বনাথ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও পৌর প্রশাসক বর্ণালী পাল বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, আমি সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি আপসারণের। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে আমরা উদ্যোগও নিয়েছিলাম। পরবর্তীতে করোনার কারণে সে অনুযায়ী এগোতে পারিনি। বর্তমানে এটা পৌরসভার অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। বরাদ্দ এলেই নিয়মানুযায়ী এ ময়লা অপসারণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই বিভাগের আরও খবর