শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১ মার্চ, ২০২১ ২৩:৩০

নির্মাণ শেষ বঙ্গবন্ধুর সেই ভাস্কর্যের

জহুরুল ইসলাম, কুষ্টিয়া

নির্মাণ শেষ বঙ্গবন্ধুর সেই ভাস্কর্যের

কুষ্টিয়ায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সেই আলোচিত ভাস্কর্যের নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। মৌলবাদীদের বাধা উপেক্ষা করে বঙ্গবন্ধুর এ গুচ্ছ ভাস্কর্য এখন স্বমহিমায় দাঁড়িয়ে আছে কুষ্টিয়া শহরের ব্যস্ততম পাঁচ রাস্তার মোড়ে। গত বছরের ৫ ডিসেম্বর রাতের আঁধারে স্থানীয় একটি মাদ্রাসা দুই ছাত্র বঙ্গবন্ধুর এই নির্মাণাধীন ভাস্কর্য ভাঙচুর করলে দেশব্যাপী সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়। দৃষ্টিনন্দন এ ভাস্কর্য বেদির পশ্চিম পাশে স্থান পেয়েছে ১৯৭১ সালের ঐতিহাসিক ৭ মার্চ ভাষণরত জাতির জনকের ভাস্কর্য। পূর্ব দিকে ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের স্মরণে নির্মাণ করা বাঙালির প্রাণ বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য। আর উত্তর পাশে স্থান পেয়েছে ১৯৬৬ সালের ৬ দফা কর্মসূচি পর যখন শেখ মুজিবুর রহমানকে বঙ্গবন্ধু উপাধি দেওয়া হয় সেই প্রতীক। এছাড়া বেদির নিচের দিকে টেরাকোটার কাজে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে জাতীয় চার নেতার ম্যুরাল। তিনটি ভাস্কর্য নির্মাণের কাজ ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। অপেক্ষায় রয়েছে উদ্বোধনের। ৩৯ লাখ ১০ হাজার টাকা ব্যয়ে এই দৃষ্টিনন্দন ভাস্কর্য স্থাপন নির্মাণ করে কুষ্টিয়া পৌরসভা।

পৌরসভা সূত্রে জানা যায়, গত বছরের ১৭ নভেম্বর এ ভাস্কর্য তৈরির কাজ শুরু হয়। গত ৫ ডিসেম্বর রাতে ঐতিহাসিক ৭ মার্চের স্মরণে গড়া বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যটির হাত এবং মুখের কিছু অংশ ভাঙচুর করে মৌলবাদীরা। পরদিন দেশব্যাপী শুরু হয় প্রতিবাদ মিছিল, সভা -সমাবেশ। পরে ক্ষতিগ্রস্ত ভাস্কর্য মেরামতের পাশাপাশি বাকি ভাস্কর্যগুলোর কাজও শেষ করা হয় একে একে। ভাস্কর জামাল মাহাবুব বলেন, ‘ঐতিহাসিক ৭ মার্চের স্মরণে গড়া ভাস্কর্যটির হাত ও তর্জনী এবং মুখের অংশ ভেঙে ফেলা হয়েছিল।  সেটি মেরামত করা কঠিন কাজ ছিল। কিন্তু সেটি চার দিনে মেরামত করতে পেরেছি। আশা করি এ ভাস্কর্যটি মানুষকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে চলতে প্রেরণা  জোগাবে। এ ভাস্কর্য বর্তমান প্রজন্মের ছেলে  মেয়েদের বঙ্গবন্ধুর আদর্শ জানতে ও বুঝতে সাহায্য করবে। পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম জানান, পাঁচ রাস্তার মোড়ের বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের সব কাজ শেষ হয়েছে। আগামী ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন এবং জাতীয় শিশু দিবসে এ ভাস্কর্য উদ্বোধনের জন্য প্রধানমন্ত্রী বরাবর আবেদন করা হয়েছে।


আপনার মন্তব্য