শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১৩ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ মার্চ, ২০২১ ২৩:২৪

দিনাজপুরে ডায়রিয়ার প্রকোপ

দিনাজপুর প্রতিনিধি

দিনাজপুরে ডায়রিয়ার প্রকোপ

দিনাজপুরে কয়েক দিন ধরে দেখা দিয়েছে ডায়রিয়ার প্রকোপ। জেলা সদর জেনারেল হাসপাতাল ছাড়াও বিভিন্ন উপজেলা হাসপাতালেই ভিড় করছেন ডায়রিয়া আক্রান্তরা। সিট না পেয়ে অনেক রোগীকে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে মেঝে বা করিডোরে। তবে শিশু রোগীর সংখ্যাই বেশি। আবহাওয়া পরিবর্তনে তাপমাত্রার পার্থক্যের কারণে ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব বলে চিকিৎসকরা জানান। দিনাজপুরসহ উত্তরাঞ্চলে কয়েক দিন থেকেই দিনে গরম ও রাতে হালকা শীত। পাতলা পায়খানা ও বমি দেখা দেওয়ায় স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়ে লাভ না হওয়ায় বাধ্য হয়েই রোগীরা ভর্তি হচ্ছেন হাসপাতালে। এ কারণে দিনাজপুরের হাসপাতালগুলোয় বেড়েছে রোগী। হাসপাতালে কর্মরতরা চিকিৎসাসেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছেন। গত দুই দিনে ডায়রিয়া রোগী ভর্তি হয়েছেন দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালে ৫১, অরবিন্দ শিশু হাসপাতালে ৩৩ আর বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২২ জন। এ পর্যন্ত দিনাজপুর জেলায় ৩ শতাধিক শিশু, নারী, পুরুষ ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে চিকিংসা নিচ্ছেন। কয়েকজন রোগীর স্বজন জানান, রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় সিট না পেয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন মেঝে ও করিডোরে। বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সোলায়মান হোসেন মেহেদী জানান, প্রতি বছরই আবহাওয়া পরিবর্তন হলে ডায়রিয়া, নিউমোনিয়াসহ বিভিন্ন রোগের লক্ষণ শিশুসহ বড়দেরও দেখা দেয়।

দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. নাজমুল হোসাইন জানান, জেনারেল হাসপাতালে ডায়রিয়া রোগীর জন্য রয়েছে আটটি সিট। রোগী বেড়ে যাওয়ায় মেঝে ও করিডোরে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে। তবে পর্যাপ্ত ওষুধ রয়েছে। জেলা সিভিল সার্জন ডা. আবদুল কুদ্দুছ জানান, আবহাওয়ার কারণেই বেড়েছে রোগী। আবার এই সময়ে পানি সংকটের কারণে অনেকে ময়লাযুক্ত পানি ব্যবহার করছেন। তবে বৃষ্টি শুরু হলেই এটা কেটে যাবে। এ জন্য সবাইকে সচেতন হতে হবে। বিশেষ করে ফুটপাথের খাবার না খাওয়াই ভালো। দু-তিন দিন হলো দিনাজপুরে ডায়রিয়া দেখা দিয়েছে। বর্তমানে দেড় শতাধিক রোগী বিভিন্ন উপজেলা হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। হাসপাতালে পর্যাপ্ত স্যালাইন ও ওষুধ মজুদ থাকার কথা উল্লেখ করে ডায়রিয়া প্রতিরোধে অভিভাবকদের সতর্ক থাকার আহ্বানও জানান তিনি।