শিরোনাম
প্রকাশ : ২৯ নভেম্বর, ২০২০ ২১:৪৩
প্রিন্ট করুন printer

কুড়িগ্রামে ১০ঘন্টা পর কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস চালু

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

কুড়িগ্রামে ১০ঘন্টা পর কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস চালু

কুড়িগ্রাম ও তিস্তা রেল স্টেশনের মাঝে টগরাইহাট ও কুড়িগ্রামের মধ্যখানে জোতগোবর্ধন এলাকায় রংপুর থেকে কুড়িগ্রামে আসা একটি সুপারি বোঝাই ট্রাক লাইনের রেলিং এর উপরে উঠে যাওয়ায় ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। 

ফলে এ এলাকায় কুড়িগ্রাম থেকে ঢাকাগামী কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেন ঢাকা থেকে কুড়িগ্রাম ও কুড়িগ্রাম থেকে ঢাকা যাওয়ার যাত্রীরা পড়েন দুর্ভোগে।

পরে সাড়ে ১০ ঘণ্টা অপেক্ষার পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়। জানা গেছে, রংপুর থেকে কুড়িগ্রাম আসা সুপারি ভর্তি ওই ট্রাকের চাকা পাম্পচার হয়ে চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে সড়কের পাশের স্টিল পাতের নির্মিত রেলিং ভেঙে রেললাইনে ওপর উঠে যায়।

এ ট্রাকটি সরাতে সময় লেগে যাওয়ায় কুড়িগ্রাম থেকে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। রোববার ভোর ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।প্রায় সাড়ে ১০ ঘণ্টা সারাদেশের সঙ্গে কুড়িগ্রামের ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ থাকে। এরপর দুপুর ২টার দিকে ট্রাকটি রেল লাইন থেকে সরানোর পর সন্ধ্যা থেকে পুনরায় ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

এর ফলে সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে পড়েন কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস নামক আন্তঃনগর ট্রেনের যাত্রীরা। এই ট্রেনটি রাতে ঢাকা থেকে ছেড়ে পরদিন ভোরে কুড়িগ্রামে পৌঁছে। এরপর সকালে কুড়িগ্রাম থেকে আবার ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। কিন্তু এই দুর্ঘটনার কারণে রোববার ভোরে ট্রেনটি কুড়িগ্রাম স্টেশনে আসতে পারেনি। ট্রেনটি থামানো হয় লালমনিরহাটের তিস্তা জংশনে। সেখান থেকে যাত্রীদের সড়কপথে বিভিন্ন যানবাহনে ১৫ কিলোমিটার দূরের কুড়িগ্রামে আসতে হয়েছে। একইভাবে ঢাকাগামী যাত্রীদের সড়কপথে তিস্তায় গিয়ে ট্রেনে উঠতে হয়েছে। এ কারণে কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস রোববার সকালে তিস্তা থেকে এক ঘণ্টা দেরিতে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে গেছে। 

লালমনিরহাট রেলওয়ে থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মো. আবদুল মতিন জানান, রোববার ভোর ৪টার দিকে চাকা বাস্ট হওয়ায় চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলায় সুপারির বস্তাভর্তি ট্রাকটি কুড়িগ্রামের সদর উপজেলার কাঁঠালবাড়ী ইউনিয়নের জোত গোবর্ধন এলাকায় রেলিং ভেঙে রেলওয়ে লাইনের ওপর উঠে যায়। ট্রাকটি ভোলা থেকে সুপারি নিয়ে কুড়িগ্রাম আসছিল। 

এ প্রসঙ্গে লালমনিরহাট রেলওয়ে ডিভিশনের অধীন তিস্তা-কুড়িগ্রাম রেলওয়ে সেকশনের পথ বিভাগের ঊর্ধ্বতন উপ-সহকারী প্রকৌশলী গোলাম মোস্তফা জানান, অনেক চেষ্টার পর দুপুর দেড়টার দিকে রেলওয়ে লাইন থেকে ট্রাকটি সরিয়ে নেওয়া হলে সাড়ে ১০ ঘণ্টা পর ওই রেলপথে ট্রেন চলাচলের বাঁধা অপসারণ করা সম্ভব হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর