শিরোনাম
প্রকাশ : ৯ জুন, ২০২১ ১৭:৪১
প্রিন্ট করুন printer

কুড়িগ্রামে ‘উত্তরবঙ্গ জাদুঘর’র নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

কুড়িগ্রামে ‘উত্তরবঙ্গ জাদুঘর’র নির্মাণ কাজের উদ্বোধন
কুড়িগ্রামে ‘উত্তরবঙ্গ জাদুঘর’র অনুমোদিত নকশা।
Google News

কুড়িগ্রামের ‘উত্তরবঙ্গ জাদুঘর’র নিজস্ব ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু হচ্ছে। মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রালয়ের বরাদ্দ করা দুই কোটি ১৬ লাখ টাকা ব্যয়ে ২০ শতাংশ জমিতে চারতলা ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে।

বুধবার বিকেল ৩টায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে এর ভবন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

কুড়িগ্রাম নতুন শহরের নাজিরা ব্যাপারিপাড়ায় নিজ বাড়িতে জাদুঘরটি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন জেলার আইনজীবী এসএম আব্রাহাম লিংকন। দ্বিতল বাসভবনে বসার ঘর, খাবারের ঘর, সেরেস্তা ঘর, এমনকি শোবার ঘরেও সাজিয়ে রাখা হয়েছে স্থানীয় ইতিহাস, ঐতিহ্য এবং মুক্তিযুদ্ধের স্মারকের দুই হাজারের বেশি প্রামাণ্য দলিল ও নানা উপকরণ।

জাদুঘরটি দেখতে সময়ে-অসময়ে নানা বয়স-পেশার মানুষ সেখানে ছুটে যান। ঘুরে ফিরে দেখেন। জাদুঘরটি দেখতে পদস্থ কর্মকর্তাসহ দেশের অনেক গুণিব্যক্তি এসেছেন বিভিন্ন সময়ে। আব্রাহাম লিংকন মূলত মুক্তিযুদ্ধের গবেষণায় মাঠ পর্যায়ে কাজ করতে গিয়ে অনেক দুর্লভ স্মারক সংগ্রহ করেন। এগুলো নিয়ে নিজের বাড়িতে একক প্রচেষ্টায় গড়ে তুলেছিলেন জাদুঘরটি।

২০১২ সালের ১২ এপ্রিল যাত্রা শুরু হয়েছিল জাদুঘরটির। দীর্ঘ ৯ বছর পর জাদুঘরটি নিজস্ব ঠিকানায় যাচ্ছে। জমিটি দান করেছেন প্রতিষ্ঠাতা লিংকন নিজেই। এর নকশা করেছেন ঢাকার ‘নকশাবিদ’ নামে একটি ফার্মের পক্ষে প্রকৌশলী বায়েজীদ মাহবুব খন্দকার। এ জাদুঘরের কাজ আাগামী দুই বছরের মধ্যে শেষ হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

জাদুঘরটিতে রয়েছে বৃহত্তর রংপুর জেলার পাঁচ হাজার ৮৬৫ জন রাজাকারের তালিকা। তাদের ক্ষমা প্রার্থণার দলিল, শান্তি কমিটির সদস্যদের তালিকা, রৌমারী রণাঙ্গনে মুক্তিযোদ্ধাদের ব্যবহৃত কিছু ডামি রাইফেল, ভূরুঙ্গামারী রণাঙ্গণে পাকিস্তানি বাহিনীর ছোঁড়া বিস্ফোরিত মর্টার শেল, গ্রেনেড-গোলার বাক্স ও নানা দলিল রয়েছে এই জাদুঘরে।

বিডি প্রতিদিন/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর