২৯ জুলাই, ২০২১ ১৬:৫৬

নেত্রকোনায় ‘কঠোর বিধিনিষেধে’ অবাধে চলাচল

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

নেত্রকোনায় ‘কঠোর বিধিনিষেধে’ অবাধে চলাচল

নেত্রকোনায় কঠোর বিধিনিষেধ বাস্তবায়নে খাদ্য সহায়তাসহ নানা ধরনের কার্যক্রম চলমান থাকলেও শহরে অবাধে চলছে রিকশাসহ সাধারণ মানুষ

নেত্রকোনায় কঠোর বিধিনিষেধ বাস্তবায়নে খাদ্য সহায়তাসহ নানা ধরনের কার্যক্রম চলমান থাকলেও শহরে অবাধে চলছে রিকশাসহ সাধারণ মানুষ। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত যানজটের মতো অবস্থা দেখা গেছে  শহরের মোক্তারপাড়ায়। শহীদ মিনার মোড়, ছোট বাজার, তেরী বাজারেও দেখা গেছে একই চিত্র। এমন চিত্র দেখে সচেতন মানুষরা মনে করছেন প্রশাসনের কঠোর বিধিনিষেধ শুধু টহল পর্যন্তই। এত কঠোর তাহলে তারা বের হচ্ছে কি করে?

এদিকে শহরের সাতপাই এলাকায় করোনা আক্রান্ত এক যুবক নিজ বাড়িতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার দুপুরে মারা যান। প্রতিদিন শনাক্ত হচ্ছেন শতাধিক মানুষ। 

শহরের ১৩টি পয়েন্টে প্রশাসনের চেয়ে স্বেচ্ছাসেবক ও এনজিও প্রতিনিধিদের কাজ করতে দেখা যাচ্ছে বেশি। তারা সাধারণদের সচেতন করার পাশাপাশি অনেক রিকশা অটো ফিরিয়ে দিচ্ছেন। কিন্তু তারপরও মানুষের চলাচল কমাতে পারছেন না।
 
এ ছাড়া যেসব মোড়ে মোড়ে বিভিন্ন বাহিনীর টহল রয়েছে সেই মোড়গুলো থেকে হেঁটে পার হয়ে ওপার থেকে এবং অন্য গলি, সড়ক দিয়ে চলছে বাহন। শহরের গুরুত্বপূর্ণ মোক্তারপাড়া সড়কেই ছিল অবাধে মানুষসহ রিকশা ভ্যান।
 
প্রশাসনের পাশাপাশি পৌর কাউন্সিলর, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন, বিভিন্ন এনজিওর সঙ্গে রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির সদস্যদের দেখা যাচ্ছে সক্রিয় ভূমিকায়। মানুষকে আটকাচ্ছেন সকাল থেকে দত্ত উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে। কিন্তু ওপারে গিয়েই তারা ঘুরে সেসকল বাহন আবারও ব্যবহার করছেন। স্বেচ্ছাসেবক ও এনজিওরা মাঠে থাকলেও জনসচেতনতা কানে নিচ্ছেন না সাধারণ মানুষ।

রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক গাজী মোজাম্মেল হোসেন টুকু বলেন, ‌‘মানুষ বেহায়া। এই যে সকাল থেকে আমি নিজে কাজ করছি, দেখছি তাদের কানে কোনো কিছুই যাচ্ছে না। তাদের জন্য লাঠিচার্জই ভালো ছিল।’ 

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ

এই বিভাগের আরও খবর