১৬ অক্টোবর, ২০২১ ১৮:৫০

পাত্র দেখে ফেরার পথে গণধর্ষণ

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি

পাত্র দেখে ফেরার পথে গণধর্ষণ

গাজীপুরের শ্রীপুরে ভাগনীর পাত্র দেখে ফেরার পথে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক নারী। শুক্রবার দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। শনিবার সকালে শ্রীপুর থানায় তিনজনকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করেছেন ওই ভুক্তভোগী নারী। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত দুই জনকে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন উপজেলার শিমুলতলী গ্রামের মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে কামরুজ্জামান (৪০) ও ধামলাই গ্রামের আবুল কালামের ছেলে মো. গোলাপ (৩৩)। মামলায় অজ্ঞাতনামা আরেকজনকে আসামি করা হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ভিকটিম ও তার বান্ধবী ত্রিশাল এলাকায় একটি বিউটি পার্লারে কাজ করেন। ভিকটিমের সাথে শ্রীপুরে মো. মোস্তফা নামে এক যুবকের সাথে গত ৮ মাস আগে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। শুক্রবার সন্ধ্যায় ভিকটিমের ভাগনীর পাত্র দেখার জন্য ওই বান্ধবীকে সাথে নিয়ে প্রেমিকের সাথে ময়মনসিংহের ত্রিশাল থেকে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার কাওরাইদ এলাকার বেলদিয়া গ্রামে আসেন।

সেখানকার আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে রাত ১০টায় কাওরাইদ বাজার থেকে সিএনজি অটোরিক্সাযোগে ত্রিশালের উদ্দেশ্যে রওনা দেন। তাদের বহনকারী সিএনজি অটোরিক্সা জৈনাবাজার-কাওরাইদ সড়কের বলদীঘাট বাজার এলাকায় পৌছলে অভিযুক্তরা তাদের গতিরোধ করে জোরপূর্বক বদলীঘাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্মানাধীন ভবনের একটি কক্ষে নিয়ে যায় এবং বান্ধবীকে বাইরে আটকে রাখে।

পরে কক্ষে নিয়ে অভিযুক্তরা একে অপরের সহযোগিতায় একাধিকবার ধর্ষণ করে। তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে অভিযুক্তরা ভিকটিমদের সিএনজি স্ট্যান্ডের দিকে পাঠিয়ে দেয়। এসময় বাজারে উপস্থিত শ্রীপুর থানার টহল পুলিশকে ঘটনার বিস্তারিত জানালে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে কামরুজ্জামান ও গোলাপকে আটক করে।

এ বিষয়ে শ্রীপুর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) গোলাম সারোয়ার জানান, ভিকটিমকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। গ্রেফতারকৃত দুই জনকে পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। অজ্ঞাতনামা আসামিকে গ্রেফতার পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

বিডি প্রতিদিন/আল আমীন

এই রকম আরও টপিক

সর্বশেষ খবর