Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর, ২০১৮ ১০:৫৯
আপডেট : ১৪ নভেম্বর, ২০১৮ ১১:০১

'খারাপ অঙ্গভঙ্গি করছিলেন, যেন আমি ওদের ভাড়া করা দাসী'

অনলাইন ডেস্ক

'খারাপ অঙ্গভঙ্গি করছিলেন, যেন আমি ওদের ভাড়া করা দাসী'

ভারতের নানা প্রান্তে প্রায়ই হেনস্থার মুখে পড়েন অভিনেত্রী ও নারী সঙ্গীত শিল্পীরা। কোথাও অভিযোগ উঠেছে আয়োজকদের বিরুদ্ধে, কোথাও বা দর্শকের বিরুদ্ধে। এবার খোদ পুলিশের বিরুদ্ধে নারী সঙ্গীত শিল্পীকে হেনস্থার অভিযোগ ওঠায় শুরু হয়েছে তোলপাড়। ভাইরাল হয়েছে বিষয়টি।

ভারতের দাঁতন থানার কালীপূজা উপলক্ষে পুলিশের আয়োজিত জলসায় কটূক্তি শুনতে হয়েছে রিয়্যালিটি শোখ্যাত সঙ্গীত শিল্পী মেখলা দাশগুপ্তকে। 

শনিবার রাতের ওই ঘটনার পরে রবিবার দুপুরে ফেসবুক লাইভে গোটা অভিজ্ঞতা জানিয়েছেন তিনি। তার অভিযোগের তীর দাঁতন থানার কনস্টেবল এবং পুলিশ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে। 

ফেসবুক লাইভে মেখলা জানান, কেউ বলছে, 'আমরা কীর্তন শুনতে আসিনি, নাচের গান করুন।' কারও গলা জড়ানো, 'ধুর, তিন টাকার শিল্পী কোথাকার!' কারও গলা আবার চড়া, 'যান ট্রেনে গিয়ে গান করুন।'

দর্শকাসনে অনেকেই মদ্যপ অবস্থায় ছিল। 'লায়লা মে লায়লা’, ‘দো ঘুঁট মুঝেভি পিলাদে শরাবি’র মতো গান গাওয়ার অনুরোধ আসে। একাংশ দর্শক তাদের কাছে গিয়ে নাচার আবদারও করে। 

মেখলা আরও জানান, ‘বলা হচ্ছিল বাঁ-দিকে রেসপেক্টেড পুলিশ অফিসারদের কাছে যেতে। কিন্তু আমি জানি না তাদের মধ্যে কেউ অফিসার কিনা। তবে কনস্টেবল, সিভিক ভলান্টিয়াররা ছিলেন। তারা এমন অঙ্গভঙ্গিতে আমাকে ডাকছিলেন যেন আমি ওদের ভাড়া করা দাসী।' 

মেখলার ক্ষোভ, তেমন হলে নৃত্যশিল্পী বা ডিজে ভাড়া করলেই হত। সত্যি বলতে খুব সাধনা করে গান শিখেছি তো, তাই এ সবে কষ্ট হচ্ছিল। নাচের গানের অনুরোধ বহু মঞ্চেই আসে। কিন্তু থানার অনুষ্ঠানে পুলিশ এমন আচরণ করলে আমাদের নিরাপত্তার কী হবে! সূত্র: আনন্দবাজার

বিডি প্রতিদিন/১৪ নভেম্বর ২০১৮/আরাফাত


আপনার মন্তব্য