শিরোনাম
প্রকাশ : ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৬:৪৪
আপডেট : ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:৫৯
প্রিন্ট করুন printer

‘অগ্রজ’ অনুষ্ঠানে এসে মুক্তিযুদ্ধ ও ক্রিকেটের গল্প শোনালেন রকিবুল হাসান

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

‘অগ্রজ’ অনুষ্ঠানে এসে মুক্তিযুদ্ধ ও ক্রিকেটের গল্প শোনালেন রকিবুল হাসান

বেসরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড আয়োজিত ‘অগ্রজ’-এর ত্রয়োদশ পর্ব অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই আয়োজনে বাংলাদেশে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখা অগ্রজ গুণী ব্যক্তিত্বরা আমন্ত্রিত হয়ে তাদের কর্মজীবনের মূল্যবান অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন। 

সেই ধারাবাহিকতায় ‘অগ্রজ’-এর এই পর্বে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা, বাংলাদেশের সাবেক ক্রিকেটার ও অধিনায়ক রকিবুল হাসান। বরাবরের মতো দেশের ব্যাংকিং জগতের সুপরিচিত নাম আনিস এ খানের সঞ্চালনায় পর্বটি অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশের ক্রিকেটাঙ্গনের জননন্দিত মুখ রকিবুল হাসান, দেশের ক্রিকেট ইতিহাসের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে যাঁর নাম।একমাত্র বাঙালি ক্রিকেটার হিসেবে পাকিস্তান একাদশ ও আন্তর্জাতিক একাদশের মধ্যকার আন-অফিসিয়াল টেস্ট ম্যাচে  ‘জয় বাংলা’ স্টিকারযুক্ত ব্যাট হাতে খেলতে নেমে একাত্তরের ফেব্রুয়ারিতে আলোড়ন সৃষ্টি করেন তিনি। সেদিন ঢাকা স্টেডিয়ামে হাজার হাজার দর্শকের মধ্যেও সঞ্চারিত হয় এই দেশাত্মবোধ, স্টেডিয়ামজুড়ে ধ্বনিত হয় একটাই স্লোগান, ‘জয় বাংলা’।

পুরান ঢাকার ফরাশগঞ্জে জন্মগ্রহণকারী রকিবুল হাসান শৈশব থেকেই টেবিল টেনিস, অ্যাথলেটিকস সহ বিভিন্ন খেলায় ছিলেন সাবলীল। সেন্ট গ্রেগরীজ স্কুলে ক্লাস এইটে অধ্যয়নকালে ক্রিকেটে তিনি ওপেনার হিসেবে খেলতে শুরু করেন। তারপরই প্রথম বিভাগের ক্রিকেটে আজাদ বয়েজ দলে তাঁর যাত্রা শুরু হয়। কায়েদে আজম ট্রফিতে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষিক্ত হওয়া রকিবুল হাসান দেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে আন-অফিসিয়াল টেস্ট ম্যাচ খেলার রেকর্ড করেন।

একাত্তরে স্বাধীনতার পূর্বে ফেব্রুয়ারিতে ‘জয় বাংলা’ স্টিকারযুক্ত ব্যাট হাতে খেলতে নেমে হৈ চৈ ফেলে দেয়া এই ক্রিকেটার মার্চে বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার ডাক এলে যোগ দেন মহান মুক্তিযুদ্ধে। এই সময় স্বাধীন বাংলা ক্রিকেট দল গঠনের লক্ষ্যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন তিনি। যুদ্ধ-পরবর্তী সময়ে স্বাধীন বাংলাদেশের হয়ে আবারও ক্রিকেটে ফেরেন এই কিংবদন্তি। অংশগ্রহণ করেন ১৯৭৯, ১৯৮২ ও ১৯৮৬ সালে অনুষ্ঠিত তিনটি আইসিসি ট্রফি টুর্নামেন্টে। দেশের হয়ে অধিনায়কত্বও করেন রকিবুল হাসান।

ক্রিকেট অন্তঃপ্রাণ রকিবুল হাসান ম্যাচ রেফারি, ধারাভাষ্যকার, ম্যানেজার, নির্বাচক, ক্রিকেট বিশ্লেষক সহ বিভিন্ন সময় নানান ভূমিকায় দায়িত্ব পালন করে দেশের ক্রিকেটে গুরত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছেন। বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের সাথে জড়িয়ে থাকা কিংবদন্তি এই ব্যক্তিত্ব ‘অগ্রজ’-এর এই পর্বে শুনিয়েছেন উত্তাল সময়ের কথা, জানিয়েছেন দেশের ক্রিকেট সংস্কৃতি গড়ে ওঠার নানান বাঁকবদলের গল্প।

আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মমিনুল ইসলাম ‘অগ্রজ’-এর আয়োজন সম্পর্কে বলেন, “আইপিডিসি ‘অগ্রজ’-এর মাধ্যমে বিভিন্নক্ষেত্রে অবদান রাখা দেশের অগ্রজদের কর্মমুখর জীবনের গল্প ডিজিটাল মাধ্যমে মানুষের মাঝে তুলে ধরতে চায় এবং মানুষকে অনুপ্রাণিত করতে চায়। এরকম একটি আয়োজনে রকিবুল হাসানকে পেয়ে আমরা উচ্ছ্বসিত। বিশেষ করে 'জয় বাংলা' স্টিকারযুক্ত ব্যাট হাতে তাঁর খেলতে নামার সেই রোমাঞ্চকর ইতিহাস থেকে আজও আমরা দেশাত্মবোধের প্রেরণা খুঁজে পাই। ‘অগ্রজ’-এর আয়োজনে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও কিংবদন্তি ক্রিকেটার রকিবুল হাসানের বলা মূল্যবান স্মৃতি ও অভিজ্ঞতার গল্প আমাদের সমৃদ্ধ করেছে।“

‘অগ্রজ’ একটি ওয়েবিনার সিরিজ যা প্রতি মাসের প্রথম ও তৃতীয় বৃহস্পতিবার আইপিডিসি’র অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ থেকে সরাসরি সম্প্রচারিত হয়। অনুষ্ঠানের প্রতিটি পর্বই অতিথিদের ব্যক্তিগত ও পেশাদারি জীবনের নানা বাঁক ও চড়াই-উৎরাই দর্শকদের সামনে তুলে আনে। অনুষ্ঠানটির সঞ্চালক আনিস এ খান প্রায় চার দশক ধরে ব্যাংকিং ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতে উজ্জ্বল ক্যারিয়ার গড়ার পর সম্প্রতি এই খাত থেকে অবসর গ্রহণ করেন। অনলাইন এই অনুষ্ঠানে বিখ্যাত ব্যক্তিরা তাঁদের সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্র যেমন অর্থ, ব্যবসা, শিল্প, সংস্কৃতি, শিক্ষা এবং মিডিয়া ইত্যাদির নানা উল্লেখযোগ্য বিষয় আলোচনা করেন। লাইভ এই অনুষ্ঠানটি রেকর্ডকৃত রূপে আইপিডিসি’র ফেসবুক পেজ, আইপডিসি’র অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেল ও www.ogroj.com.bd এই ঠিকানায় পাওয়া যাবে। বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন: www.ipdcbd.com.

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর