Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১০ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৯ মার্চ, ২০১৯ ২৩:০৯

ডিসেম্বরেই বাসের উপযোগী হবে পূর্বাচল

নিজস্ব প্রতিবেদক

ডিসেম্বরেই বাসের উপযোগী হবে পূর্বাচল

গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যেই পূর্বাচল এলাকা বসবাস উপযোগী হবে। মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব নেওয়ার পর গতকাল প্রথমবারের মতো পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্প এলাকা ও ১০০ ফুট খাল প্রকল্পের কাজ পরিদর্শন শেষে ১৯ নম্বর সেক্টরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান গণপূর্তমন্ত্রী। শ ম রেজাউল করিম বলেন, ২০১৯ সালের মধ্যেই  পূর্বাচল এলাকা বসবাস উপযোগী হবে। খুব শিগগিরই পানি সরবরাহের ব্যবস্থা করা হবে। রাস্তার কাজ প্রায় সম্পন্ন হওয়ার পথে। বিদ্যুতের লাইন চলে গেছে। আধুনিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনার ব্যবস্থা থাকবে পূর্বাচলে। এর কাজ চলছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশে এটাই সবচেয়ে বড় কোনো প্রকল্প যেখানে যথেষ্ট ফাঁকা জায়গা রাখা হচ্ছে। যেখানে ঢাকায় সাত থেকে আট ভাগ ফাঁকা জায়গা আর এখানে ৪৫ ভাগ ফাঁকা জায়গা রাখা হচ্ছে। এটি হবে একটি আধুনিক স্যাটেলাইট সিটি। তিনি বলেন, এখন থেকে পূর্বাচলে বাড়ি নির্মাণের নকশা অনুমোদন করাতে পারবেন প্লট মালিকরা। এজন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দিয়ে আবেদন করতে হবে। আগামী ১ মে থেকে অনলাইনে এ আবেদন করা যাবে এবং অনলাইনেই অনুমোদনের বিষয়টি জানা যাবে। এ সময় সাংবাদিকরা জানতে চান প্রকল্পের কাজ শেষ করতে এত সময় লাগছে কেন? জবাবে গণপূর্তমন্ত্রী জানান, আমি স্বীকার করে নিচ্ছি আমরা যথাসময়ে কাজ শেষ করতে পারিনি। কিন্তু নানা কারণে বিলম্ব হয়েছে। অনেক মামলা ছিল। জমি নিয়ে ঝামেলা ছিল। স্থানীয়রা জায়গা ছাড়তে চাচ্ছিলেন না। তাদের বুঝিয়ে সবকিছু ম্যানেজ করতে সময় লেগেছে। তার পরও যদি এই বিলম্বে রাজউকের কারও কোনো গাফিলতি থাকে সেটা খতিয়ে দেখা হবে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি বলেন, উন্নয়নের কোনো বিকল্প নেই। তাই সরকার জমির তিন গুণ ক্ষতিপূরণ দিচ্ছে জমি মালিকদের। এখানকার স্থানীয় লোকজন এই শহরের সব সুবিধা পাবেন উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, এখানকার মানুষ স্বল্প খরচে স্যাটেলাইট টাউনের সুবিধা পাবেন। তিনি বলেন, যারা ক্ষতিপূরণের টাকা পাচ্ছেন না বা পেতে কোনো সমস্যা হচ্ছে সেটা আমাকে সরাসরি জানাবেন। দ্রুত সমাধান করা হবে। মন্ত্রী বলেন, পূর্বাচলে আইকনিক টাওয়ার নির্মাণের জন্য টেন্ডার প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। এখন অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষার বিষয় রয়েছে। বেশকিছু প্রক্রিয়া রয়েছে। দ্রুততার সঙ্গে এসব প্রক্রিয়া শেষে আইকনিক টাওয়ারের কাজ শুরু হবে বলে আশা করি। আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে পূর্বাচলে সম্প্রতি বরাদ্দ দেওয়া ৮৪টি প্লট নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, এটি একটি বিচারাধীন বিষয়। এ নিয়ে এখন কোনো কথা না বলা ভালো। তবে আমি রাজউক চেয়ারম্যান ও সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানতে পেরেছি যে, একটি ভুল ধারণার ওপর ভিত্তি করে মামলা করা হয়েছে।


আপনার মন্তব্য