Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১০ অক্টোবর, ২০১৯ ২৩:২৯

বুয়েট ছাত্রদের আলটিমেটাম

শুক্রবারের মধ্যে দাবি না মানলে বিশ্ববিদ্যালয়ে তালা, উপাচার্যের পদত্যাগ ও দলীয় রাজনীতি বন্ধের দাবি শিক্ষক সমিতির, ছাত্রলীগের শোক র‌্যালি

নিজস্ব প্রতিবেদক

বুয়েট ছাত্রদের আলটিমেটাম
আবরার হত্যার প্রতিবাদে গতকাল ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ -বাংলাদেশ প্রতিদিন

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়-বুয়েটের মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় গতকালও উত্তাল ছিল দেশের শিক্ষাঙ্গন। খুনিদের বিচারসহ ১০ দফা দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিলের পর দাবি আদায়ে আলটিমেটাম দিয়েছেন বুয়েট শিক্ষার্থীরা। আজ শুক্রবারের মধ্যে দাবি না মানলে তালা ঝোলানোর হুমকি দিয়েছেন তারা। একই সময় উপাচার্যের পদত্যাগ দাবি করেছে বুয়েট শিক্ষক সমিতি। আবরার হত্যার প্রতিবাদে শোকর‌্যালি করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাবেশ করেছে প্রগতিশীল বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন। ডাকসু ভিপি নুরুল হক নূর বলেছেন, ছাত্ররাজনীতি নয়, বন্ধ করতে হবে গুন্ডামি। রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশের অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেও আন্দোলনে সরব ছিলেন শিক্ষার্থীরা।

গতকাল সকাল থেকেই বুয়েটের শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে সমবেত হন শিক্ষার্থীরা। বেলা ১২টার দিকে সেখানে এক সমাবেশ থেকে উপাচার্যকে দেওয়া হয় আলটিমেটাম। উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলামকে আজ শুক্রবার বেলা ২টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের মধ্যে উপস্থিত হয়ে জবাবদিহি করাসহ তাদের ১০ দফা দাবি মেনে নিতে সময় বেঁধে দেওয়া হয়। অন্যথায় কাল (শনিবার) থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। গতকাল দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বুয়েটের প্রধান ফটকের সামনে দাবি আদায়ে ছিল শিক্ষার্থীদের ধারাবাহিক বিক্ষোভ। এ ছাড়া গতকাল আবরারের হত্যাকারীদের শাস্তির দাবিতে প্রতীকী এক নাটিকার আয়োজন করা হয়। শিক্ষার্থীদের ১০ দফা দাবির মধ্যে অন্যতম হলো আবরারের খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা, সিসিটিভির ভিডিও ফুটেজে শনাক্ত খুনিদের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আজীবন বহিষ্কার করা, বুয়েট ক্যাম্পাসে সাংগঠনিক ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ করা ইত্যাদি। এসব দাবিতে শিক্ষার্থীরা দিনভর ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যেই বুয়েট শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক এ কে এম মাসুদ বুয়েট উপাচার্য সাইফুল ইসলামের পদত্যাগ দাবি করে গতকাল গণমাধ্যমের সামনে তাদের সমিতির সাত দফা দাবি তুলে ধরেন। সভাপতি বলেন, ‘সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর বিভিন্ন নির্যাতনের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দীর্ঘদিনের নির্লিপ্ততা, নিষ্ক্রিয়তা, আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ এবং আবাসিক হলসমূহে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে উপাচার্য ধারাবাহিকভাবে অবহেলা ও ব্যর্থতার প্রমাণ দিয়েছেন। এটি আবরার ফাহাদের হত্যাকান্ডে উচ্ছৃঙ্খল শিক্ষার্থীদের সাহস জুগিয়েছে। এসব ব্যর্থতার কারণে অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম বুয়েটের উপাচার্য পদে থাকার নৈতিক অধিকার হারিয়েছেন। অবিলম্বে তাকে পদত্যাগ করার আহ্বান জানাই। তিনি স্বেচ্ছায় পদত্যাগ না করলে শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে সরকারের কাছে তাকে অপসারণের জোর দাবি জানাচ্ছে শিক্ষক সমিতি।’ তিনি বলেন, আবরার ফাহাদের জানাজায় উপাচার্য অংশ নেননি, এমনকি তিনি আবরারের পরিবারের প্রতি সমবেদনাও জ্ঞাপন করেননি। সভাপতি বলেন, আবাসিক হলে অবৈধ কক্ষ দখলদারি উচ্ছেদ করে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। বুয়েটে সব ধরনের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ রাজনৈতিক অঙ্গসংগঠনভিত্তিক ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ করে শিক্ষার নিরাপদ পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে হবে। বুয়েটের শিক্ষকরা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ রাজনীতি থেকে বিরত থাকবেন।

ছাত্র রাজনীতি নয়, বন্ধ করতে হবে গুন্ডামি : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নূর বলেছেন, ছাত্ররাজনীতি নয়, বরং শিক্ষাঙ্গনে ক্ষমতাসীনদের গুন্ডামি বন্ধ করতে হবে। তিনি বলেন, ছাত্ররাজনীতির স্বার্থে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছাত্র সংসদ নির্বাচন চালু করতে হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এক পদযাত্রা কর্মসূচির আগে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

ছাত্রলীগের শোকর‌্যালি : আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার প্রতিবাদে শোকর‌্যালি করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। গতকাল বেলা ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন থেকে র‌্যালিটি বের হয়। র‌্যালিলিটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি, শহীদ মিনার, ফুলার রোড এলাকা হয়ে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে গিয়ে শেষ হয়। উপাচার্যের বাসভবনের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান বলেন, কোনো ব্যক্তির দায় সংগঠন নেবে না। ছাত্রলীগের সুনাম বিনষ্টকারীরা কোনোভাবেই ছাত্রলীগের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকতে পারবে না।

সারা দেশে বিক্ষোভ মিছিল-মানববন্ধন : বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকারীদের শাস্তির দাবিতে গতকাল ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন। আবরার স্মরণে শোকর‌্যালিলি করেছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। মাগুরায় মিছিল-সমাবেশ করেছে জাসদ ছাত্রলীগ। নাটোরের বড়াইগ্রামে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন জেলা ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা। বরিশালে ঝটিকা বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে ছাত্রদল। আবরারের খুনিদের ফাঁসির দাবিতে ঝালকাঠিতে মানববন্ধন করেছেন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।


আপনার মন্তব্য