শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২৩:৩৮

বাংলাদেশকে ভারত ডাম্পিং স্টেশন বানাতে চায় : ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশকে ভারত ডাম্পিং স্টেশন বানাতে চায় : ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ভারত বিতর্কিত নাগরিকত্ব বিল পাস করে বাংলাদেশকে একটা ‘ডাম্পিং স্টেশন’ বানাতে চায়। আর সেটা করতেই ভারতকে সহযোগিতা করছে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার।

গতকাল দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব অভিযোগ আনেন।

এ সময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, বেগম সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্য কোনো বিচারেই বাংলাদেশের মানুষ গ্রহণ বা সমর্থন করতে পারে না। বস্তুত অমিত শাহের বিএনপি ও বাংলাদেশবিরোধী বক্তব্যকে নিরঙ্কুশভাবে সমর্থন করে ওবায়দুল কাদের ভারত সরকারের বিদেশমন্ত্রীর বর্ধিত দায়িত্ব পালন করেছেন মাত্র। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেনের বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, যেভাবে মিয়ানমার থেকে ১১ লাখ রোহিঙ্গা এসে বাংলাদেশকে অনিশ্চয়তার মাঝে ফেলেছে, সেভাবেই ভারতও এদেশে আরও বড় রকমের সংকট সৃষ্টি করতে চাচ্ছে। ‘ভারত থেকে বাংলাদেশে কেউ এলে তারা যদি বাংলাদেশের নাগরিক না হন তাদের ফেরত পাঠানো হবে’- পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের মাধ্যমে প্রমাণ হয় যে, ভারত থেকে বাংলাদেশে পুশ ইন হচ্ছে। আর সরকার এটা স্বীকার করে নিচ্ছে। বিএনপির এই মুখপাত্র একটি গণবিরোধী, ভোটারবিহীন সরকার তার অবৈধ ক্ষমতাকে টিকিয়ে রাখতে কতটা নির্লজ্জ, হিতাহিত জ্ঞানশূন্য ও ক্ষমতালিপ্সু হতে পারে- অমিত শাহের বক্তব্যকে সমর্থন করতে গিয়ে মন্ত্রীরা ৭১-পরবর্তী বঙ্গবন্ধু সরকারের সময়কালকে প্রশ্নবিদ্ধ করতেও দ্বিধা করেন না বলে উল্লেখ করেন। কারণ ভারতের পার্লামেন্টে যে বিতর্কিত বক্তব্য দিয়েছেন অমিত শাহ- সেখানে শুধু বিএনপি সরকারের সময়কালকেই নয়, ৭১-পরবর্তী সরকার এবং বর্তমান সরকারকেও সরাসরি অভিযুক্ত করেছেন। আর আমাদের দেশের মন্ত্রীরা সেটাকে নির্লজ্জভাবে সমর্থন করেছেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর