শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২২:৫৫

নাছিরের মায়ের শয্যাপাশে ও বাবুর কবর জিয়ারত রেজাউলের

বিএনপির ঘোষণা ২৪ ফেব্রুয়ারি

মুহাম্মদ সেলিম, চট্টগ্রাম

নাছিরের মায়ের শয্যাপাশে ও বাবুর কবর জিয়ারত রেজাউলের

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী এখনো মনোনীত করা হয়নি। প্রার্থীর নাম ঘোষণার নির্দেশনা পাওয়ার আশায় লন্ডনের দিকে তাকিয়ে আছেন কেন্দ্রীয় বিএনপির নেতারা। চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন দলীয় মনোনয়ন যুদ্ধে এগিয়ে থাকলেও দলের বাকি মনোনয়ন প্রত্যাশীরা চেষ্টা করছেন শেষ মুহূর্তে ‘পাশার দান’ উল্টে দিতে। তাই মনোনয়ন পেতে জোর লবিং করছে লন্ডনে।

আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী গতকাল দলের ‘দুঃসময়ের নেতা’ আখতারুজ্জামান বাবুর কবর জিয়ারত করেন। তার সঙ্গে ছিলেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন।

সবুজ সংকেতের অপেক্ষায় : বিএনপির চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান শামীম বলেন, ‘দলের জন্য ত্যাগ, মাঠ পর্যায়ে জনপ্রিয়তা রয়েছে এমন নেতাকে মেয়র পদের জন্য মূল্যায়ন করা হবে। ২৪ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠক হবে। এ বৈঠকে মেয়র পদপ্রার্থী মনোনীত হতে পারেন। জানা যায়, কাকে প্রার্থী করলে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী রেজাউলের সঙ্গে টেক্কা দেওয়া যাবে তা নিয়ে গভীরভাবে চিন্তা করছে বিএনপি। তাই সেই বিষয়টিকে সামনে রেখে চলছে হিসাব-নিকাশ। এরই মধ্যে দলের পক্ষ থেকে মনোনয়ন নেওয়া প্রার্থীদের জীবন বৃত্তান্ত এবং অতীতের যাবতীয় রাজনীতিক কর্মকান্ডের আমলনামা পাঠানো হয়েছে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কাছে। তিনিই এখন প্রার্থীদের নানান দিক চুলচেরা বিশ্লেষণ করছেন। লন্ডন থেকে যার বিষয়ে সবুজ সংকেত দেওয়া হবে তাকেই চূড়ান্ত প্রার্থী ঘোষণা করা হবে ২৪ ফেব্রুয়ারির স্থায়ী কমিটির বৈঠকে। মেয়র পদে প্রার্থী হওয়ার জন্য বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশা করে ফরম দাখিল করেছে ছয়জন। তাদের মধ্যে রয়েছেন মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর, সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক এরশাদ উল্লাহ, সৈয়দ আজম উদ্দিন, মহিলাবিষয়ক সহ-সম্পাদক লুসি খান এবং সাবেক কাউন্সিলর নিয়াজ মোহাম্মদ খান। দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে ইতি-নেতির বিচারে ডা. শাহাদাত এগিয়ে থাকলেও শেষ মুহূর্তে দাবার চাল উল্টিয়ে মনোনয়ন নিশ্চিত করতে চান বক্কর ও এরশাদ উল্লাহ। যদিও অস্বাভাবিক কিছু না ঘটলেও ডা. শাহাদাতকে বিএনপির একক প্রার্থী ঘোষণা করতে পারে বিএনপি। চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম বলেন, ‘বিগত সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মতো কোনো ব্যবসায়ী নেতা এবার বিএনপির হয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুক তা চাই না। তৃণমূলের প্রত্যাশা চট্টগ্রাম এমন কাউকে মনোনয়ন দেওয়া হোক যাকে নেতা কর্মীরা সব সময় বিপদে কাছে পাবে।’

হাইলধরে রেজাউল : রেজাউল করিম চৌধুরী দিনের কাজ শুরু করেছেন দলের স্বনামখ্যাত নেতা প্রয়াত আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুর কবর জিয়ারতের মধ্য দিয়ে। জিয়ারতের জন্য শুক্রবার মধ্যদুপুরে তিনি চট্টগ্রামের আনোয়ারার হাইলধরে রওনা দেন। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন বর্তমান মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিন। যেখানে শায়িত আছেন দলটির দুঃসময়ের নেতা হিসাবে পরিচিত সাবেক এমপি ও বঙ্গবন্ধুর ¯েœহধন্য আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু। এর আগে তিনি বৃহষ্পতিবার রাত ১২টা ১ মিনিটে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে ভাষা শহীদ ও ভাষা সংগ্রামীদের প্রতি ফুলেল শ্রদ্ধা জানান। প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা ও দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের নেতৃত্বে এবং আ জ ম নাছিরকে সঙ্গে নিয়ে রেজাউল করিম চৌধুরী শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। এদিকে আওয়ামী লীগের প্রয়াত নেতা ও মুক্তিযোদ্ধা আখতারুজ্জামান চৌধুরীর কবর জিয়ারত প্রসঙ্গে মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, আখতারুজ্জামান চৌধুরীর মতো মহান নেতাদের ত্যাগ এবং অবদানের কারণে এদেশে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এখনো সগৌরবে লালিত হচ্ছে। তাদের মতো আদর্শিক রাজনৈতিক নেতাদের অনুসরণ না করলে এবং তাদের প্রতি শ্রদ্ধাপূর্ণ ভালোবাসা না থাকলে আমরা সামনের দিকে এগোতে পারব না। তাই তার রুহের মাগফিরাত কামনা এবং শ্রদ্ধা জানানোর জন্যই তার কবর জিয়ারত করলাম। চসিকের বর্তমান মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের নেতৃত্বে মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরীর এই কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন নগর আওয়ামী লীগ নেতা ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান জহিরুল আলম দোভাষ, নগর আওয়ামী লীগ নেতা ও মুক্তিযোদ্ধা নোমান আল মাহমুদ, শফিকুল ইসলাম ফারুক, শফিক আদনানসহ অসংখ্য নেতা-কর্মী। তাদের নিজের বাড়িতে বরণ করে নেন আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুর ছেলে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ। বিকালে আনোয়ারা থেকে ফিরে রেজাউল করিম চৌধুরী নগর ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পৃথক বৈঠকে বসে আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচনের করণীয় সম্পর্কে মতবিনিময় করেন।

মেয়রের মাকে দেখতে হাসপাতালে : রেজাউল করিম চৌধুরী গতকাল দুপুরে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের মা ফাতেমা জোহরাকে দেখতে মেহেদীবাগে ম্যাক্স হাসপাতালে যান। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন নগর ও জেলা আওয়ামীলীগের নেতারা। তখন সেখানে আ জ ম নাছির ছিলেন না। মেয়রের মা ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে এই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তিনি ফুসফুসের প্রদাহ এবং উচ্চ রক্তচাপ নিয়ে ভর্তি হন। ডাক্তাররা রেজাউল করিমকে জানান, ফাতেমা জোহরার অবস্থা এখন আগের চেয়ে ভালো।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর