শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৩ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২ এপ্রিল, ২০২০ ২৩:৩১

দেশের দরকার, তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে উপহার হিসেবে দিতে চেয়েছি

সায়েম সোবহান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, বসুন্ধরা গ্রুপ

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের দরকার, তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে উপহার হিসেবে দিতে চেয়েছি

করোনাভাইরাসের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সরকারকে সহায়তার অংশ হিসেবে ৫ হাজার শয্যার হাসপাতাল তৈরি করবে দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপ। গত রবিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহানের এ-সংক্রান্ত একটি লিখিত প্রস্তাব দেওয়া হয়। এ ছাড়া ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বসুন্ধরার ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রস্তাবটি তুলে ধরেন। এতে রাজধানীর কুড়িলে বসুন্ধরার চারটি কনভেনশন সিটি ও একটি ট্রেড সেন্টারকে হাসপাতালে রূপান্তরের কথা বলা হয়। প্রধানমন্ত্রী প্রস্তাবটি গ্রহণ করেছেন বলে তাঁর কার্যালয়সূত্রে জানা গেছে। এ প্রসঙ্গে বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান বলেন, ‘আমাদের বসুন্ধরা কনভেনশন সিটি যেটা আছে, সেটাকে আমরা অস্থায়ী হাসপাতাল করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে প্রস্তাব দিয়েছি। তাঁরা প্রস্তাবটি গ্রহণ করেছেন। এতে আমরা খুশি। আমরা চাই তাঁরা জরুরিভাবে কাজটা শুরু করে দিক। বাংলাদেশে একটা খুব দুঃসময় যাচ্ছে। ১৯৭১ সালের পরে এ রকম সিচুয়েশন কিন্তু ফেস করা হয়নি। এই ন্যাশনাল ক্রাইসিসে বসুন্ধরা গ্রুপ হিসেবে আমরা এগিয়ে এসেছি। কারণটা হলো, দেশের এখন দরকার এটা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে উপহার হিসেবে এটা আমরা দিতে চেয়েছি। এটা আপনারা ব্যবহার করুন। স্পেসের জন্য যে বিদ্যুৎ, পানি, টয়লেট জরুরি; ফায়ার ফাইটিং তারপরে সেন্ট্রাল এয়ারকন্ডিশনিং- সব সুবিধাই আছে। এটাকে আইসিইউ করা সম্ভব। এয়ার লিফট করা সম্ভব। বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা থেকে যদি এয়ার লিফট করে কাউকে আনতে হয়, তাহলে সেখানে হেলিকপ্টার নামার ব্যবস্থা আছে। লাগবে ডক্টর আর বেডগুলো, আর ইউনিটগুলো দরকার। যেগুলো সরকারের অলরেডি আছে। প্রয়োজনে সাত থেকে দশ দিনের মধ্যে একটা করা যাবে। আমাদের স্পেস অনুযায়ী আমরা ৫ হাজার বেড কাউন্ট করেছি। যদিও মাসের পর মাস থাকবে না লোকজন। ট্রিটমেন্ট হবে, তারা চলে যাবেন। ব্যাচ বাই ব্যাচ আসবেন। কিন্তু আমরা চাই না, আল্লাহ না করুন, দেশের যেন এই অবস্থা না হয়।’ প্রসঙ্গত, এর আগে সায়েম সোবহান প্রধানমন্ত্রীর করোনা মোকাবিলার তহবিলে ১০ কোটি টাকার চেক হস্তান্তর করেন। এ ছাড়া বসুন্ধরা গ্রুপের পক্ষ থেকে রাজধানীর নিম্নবিত্ত পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া অব্যাহত রয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর