শিরোনাম
প্রকাশ : ১৮ জুন, ২০১৯ ১৭:১৬

পাকিস্তানের মন্ত্রিসভায় 'হুলো বিড়াল', ভিডিও ভাইরাল

অনলাইন ডেস্ক

পাকিস্তানের মন্ত্রিসভায় 'হুলো বিড়াল', ভিডিও ভাইরাল
সংগৃহীত ছবি

ফেসবুকের ক্যাট ফিল্টার বা বিড়ালের মুখোশের ফিল্টার দিয়ে অনেক তরুণ-তরুণীই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হাস্যরসের জন্ম দেন। কিন্তু পাকিস্তান সরকারের রাজনীতিবিদ যে এ ধরনের ক্যাট ফিল্টারে হাসির খোরাক হবেন, তা কে জানতো। 

গত শুক্রবার ফেসবুকে লাইভ সংবাদ সম্মেলনে প্রাদেশিক মন্ত্রী শওকত ইউসুফজাইয়ের বিড়ালমুখো ছবি নিয়ে টুইটারে ব্যাপক হাসাহাসি হয়েছে। ফেসবুকের ক্যাট ফিল্টার বা বিড়ালের মুখোশের ফিল্টার ভুলবশত অন থাকাতেই ঘটে ওই বিপত্তি।

সেই লাইভ দেখে রীতিমতো হাসিতে ফেটে পড়েন দেশটির নেট ব্যবহারকারীরা। এ নিয়ে হাস্যরসে মেতে ওঠেন তারা। নানা ব্যঙ্গাত্মক মন্তব্য করে টুইট করেছেন অনেকে। সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন ক্যাট ফিল্টার ব্যবহৃত সেই রাজনীতিবিদের দৃশ্য।

পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম সামা টিভির খবরে বলা হয়, সম্প্রতি দেশটির খাইবার পাখতুনখোয়ার প্রাদেশিক সরকারের সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। আর সেই সম্মেলন নিয়ম মেনে ফেসবুকে লাইভে প্রচার করা হয়। কিন্ত বিপত্তি ঘটে সেখানেই।

ওই লাইভে দেখা যায়, বিড়ালের কান ও মুখে গোঁফ এঁটে বসে আছেন রাজনীতিবিদ শওকত ইউসুফজায়ি। ঠিক যেন সম্মেলনে কোনো হুলো বিড়াল বসে বক্তব্য দিচ্ছেন।

এমন ঘটনায় লাইভের কমেন্ট বক্সে হাসির রোল পড়ে যায়। সচেতনদের কেউ কেউ পেজের অ্যাডমিনকে জলদি ক্যাট ফিল্টার সরাতে বলেন।

তবে এমন বোকামোর জন্য শওকত ইউসুফজায়ি দায়ী নন বলেও জানিয়েছে সংবাদমাধ্যমটি। কারণ লাইভটা প্রচার করছিল পাকিস্তানের তেহরিক-ই-ইনসাফের সোশ্যাল মিডিয়া টিম। তারাই লাইভ ভিডিও প্রচার করার সময় ক্যাট ফিল্টার বন্ধ করতে ভুলে যান।

জানা গেছে, এমন বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পেজের পক্ষ থেকে ভিডিওটি ডিলিট করা হয়েছে।

কিন্তু তার আগেই ক্যাটফিল্টার হওয়া দৃশ্যের স্ক্রিনশট নিয়ে নেয় অনেকেই। টুইটার ও ফেসবুকে ছবিটি শেয়ার করে ব্যাপক হাসাহাসি চলছে। 

ভিডিও :

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য