শিরোনাম
প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর, ২০১৯ ১৪:৫৩
আপডেট : ১৪ নভেম্বর, ২০১৯ ১৬:২৯

শত্রুপক্ষকে ঘায়েল করতে অত্যাধুনিক রোবট সেনা আনছে ভারত

অনলাইন ডেস্ক

শত্রুপক্ষকে ঘায়েল করতে অত্যাধুনিক রোবট সেনা আনছে ভারত
সংগৃহীত ছবি

সীমান্তে নজরদারি চালাবে, তরতর করে গাছ বাইবে, গ্রেনেড হামলার মুখেও রুখে দাঁড়াবে। এমনই অত্যাধুনিক লড়াকু রোবট বাহিনীকে প্রস্তুত করছে ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। জম্মু-কাশ্মীরে বাড়তে থাকা সন্ত্রাস নিয়ে উদ্বিগ্ন কেন্দ্রীয় সরকার। নিয়ন্ত্রণরেখার ওপারে আধুনিক অস্ত্র নিয়ে প্রতিদিন ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালাচ্ছে পাকিস্তানের মদদপুষ্ট একাধিক জঙ্গি সংগঠন। সন্ত্রাসের মেঘ ঘনীভূত হয়েছে গোটা দেশেই। এই অবস্থায় সুরক্ষার পাঁচিল গড়ে তুলবে অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে তৈরি এই রোবট সেনা, এমনটাই জানানো হয়েছে ভারতীয় সেনার পক্ষ থেকে। খবর দ্য ওয়ালের।

ভারতীয় সেনাবাহিনী বলছে, প্রাথমিকভাবে ৫৫০টি রোবোটিক্স ইউনিট তৈরির প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। সম্পূর্ণ ভারতীয় প্রযুক্তিতে তৈরি এই রোবটগুলোর কার্যক্ষমতা থাকবে অন্তত ২৫ বছর। ভারতীয় সেনার এক উর্ধতন কর্তার কথায়, এই রোবটগুলো আধুনিক প্রযুক্তিতে তৈরি করা হচ্ছে। এরা যেমন সিঁড়ি ভাঙতে পারবে দ্রুত, তেমনিই গাছে চড়তে পারবে অসাধারণ ক্ষিপ্রতায়। সেনাবাহিনীকে ঠিক যেমন ভাবে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় ঠিক তেমনই ডেটা ইনপুট করা হবে এদের সিস্টেমে। আগুনের মধ্যে ঝাঁপ দিতে পারবে, জলে নামতে পারবে, গ্রেনেড বা যে কোনও আগ্নেয়াস্ত্র ছুড়েও কাবু করা যাবে না এই রোবট-সেনাদের। যতরকম ভাবেই বাধার প্রাচীর গড়ে তুলুক না কেন জঙ্গিরা, অনায়াসে তা ভেঙে গুঁড়িয়ে দেবে এই রোবট-বাহিনী।

এই রোবট-সেনাদের মূলত ব্যবহার করা হবে জম্মু ও কাশ্মীরের স্পর্শকাতর বিভিন্ন এলাকায়। ভারতের সেনাবাহিনী বলছে, রাষ্ট্রীয় রাইফেলের সেনারা রোবট পেলে সীমান্তে নজরদারি অনেক সহজ হবে। কারণ, নজরদারি  চালাতে রোবটগুলোতে থাকবে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ক্যামেরা এবং ট্রান্সমিশন সিস্টেম। ক্যামেরার ব্যাপ্তি হবে ১৫০-২০০ মিটার। দিনে-রাতে যে কোনও বিপদসঙ্কুল এলাকায় ঢুকে গিয়ে ছবি ও তথ্য যোগাড় করে আনতে পারবে এই রোবটরা। সেই তথ্যের উপর ভিত্তি করেই জঙ্গি দমনের ছক সাজাবে ভারতীয় সেনাবাহিনী। ১৯৯০ সালে এমনই রোবট-সেনার প্রয়োজনীয়তার কথা বলেছিলেন তৎকালীন ভারতের রাইফেলসের ডিরেক্টর জেনারেল। 

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য