শিরোনাম
প্রকাশ : ২০ জানুয়ারি, ২০২০ ১১:০০
আপডেট : ২০ জানুয়ারি, ২০২০ ১১:০৪

ধূমপান করতে করতেই ঘুম, অতঃপর...

অনলাইন ডেস্ক

ধূমপান করতে করতেই ঘুম, অতঃপর...

৭৪ বছর বয়সী লোকটি এলাকায় পরিচিত ছিলেন ‘চেইন স্মোকার’ হিসেবে। কারণ ঘন ঘন ধূমপান করতেন তিনি।

রবিবার এই সিগারেটই বয়ে নিয়ে এল বৃদ্ধের মৃত্যু। সিগারেট খেতে খেতেই ঘুমিয়ে পড়েছিলেন তিনি। আর তা থেকেই বন্ধ ঘরে আগুন। কার্বন মনোক্সাইডের বিষ গ্যাসে মৃত্যু হল তার। তাছাড়া তার শরীরের অনেকটাই পুড়ে গিয়েছিল আগুনে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে। 

পুলিশ জানিয়েছে, রবিবার সকালেই ওয়াটগঞ্জ এলাকায় ঘটে এই ঘটনাটি। মৃত বৃদ্ধের নাম মোহাম্মদ ইলিয়াস (৭৪)। তিনি ওয়াটগঞ্জ থানা এলাকার মুন্সিগঞ্জ রোডের বাসিন্দা। ছুটির দিনে সকালেই বৃদ্ধের ঘরের ভিতর থেকে গলগল করে ধোঁয়া বের হতে দেখা যায়। এলাকার বাসিন্দারা বুঝতে পারেন, অগ্নিকাণ্ড হয়েছে ঘরের ভিতরে। তারা বাড়িতে এসে দরজায় ধাক্কা দিয়ে বৃদ্ধকে ডাকতে শুরু করে। কিন্তু বৃদ্ধর কোনও সাড়াশব্দ না পেয়ে তাদের সন্দেহ হয়। স্থানীয় বাসিন্দারাই দরজার তালা ভেঙে ফেলেন। ভিতরে ঢুকে দেখেন, আসবাবপত্র গ্রাস করছে আগুন। ঘরের মধ্যে অচেতন অবস্থায় পড়ে রয়েছেন বৃদ্ধ। তার দুই আঙুলের ফাঁকে রয়েছে পোড়া সিগারেট।

বাসিন্দারা বুঝতে পারেন যে, ধূমপান করতে করতেই তিনি ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। তার সিগারেট থেকে আগুনের ফুলকি গিয়ে পড়ে বিছানায়। বিছানা জ্বলতে শুরু করে। সেখান থেকে আগুন ধরে যায় অন্যান্য আসবাবপত্রে। বৃদ্ধকে অচেতন অবস্থায় বাইরে বের করে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসা চলাকালীন দুপুরেই মৃত্যু হয় ইলিয়াসের। পুলিশের ধারণা, বিছানা ও আসবাব পুড়ে বিষাক্ত কার্বন মনোক্সাইড গ্যাস নির্গত হয়। সেই গ্যাস শরীরে যাওয়ার ফলেই তাঁর মৃত্যু হয়। সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য