শিরোনাম
প্রকাশ : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০৮:৩৫
আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০৮:৪৫

বিদেশিরা প্রবেশ করতে পারবে চীনে

অনলাইন ডেস্ক

বিদেশিরা প্রবেশ করতে পারবে চীনে

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে অবরুদ্ধ থাকার পর ধীরে ধীরে জীবনযাপন স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে চীনে। বিদেশি নাগরিকদের প্রবেশের ক্ষেত্রে গত মার্চ থেকে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল দেশটি। তবে চীনে ফেরার ব্যাপারে বুধবার জানানো হয়েছে যে, ধীরে ধীরে দেশটিতে প্রবেশের অনুমতি পাবেন বৈধ আবাসিক অনুমতি প্রাপ্ত বিদেশিরা।

চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, যে সকল ব্যক্তির চাকরি সূত্রে দেশটিতে থাকার অনুমতি রয়েছে এবং যাদের দুই ধরনের পারিবারিক রিইউনিয়নের অনুমতি রয়েছে, তারা এখন আবেদন না করেই চীনে প্রবেশ করতে পারেন। তবে বিদেশিদের করোনা প্রতিরোধে যে নীতি চালু করেছে চীন তা কঠোর ভাবে মেনে চলতে হবে। 

এদিকে, জনগণকে কম করে খাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। সেইসঙ্গে কোনোভাবেই খাবার যেন নষ্ট না করা হয়, সেই আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি। করোনাভাইরাস মহামারি ও চলমান ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতির মধ্যে খাদ্য সরবরাহের সংকটে সম্প্রতি এই নির্দেশনা দেন তিনি। দেশটিতে যে পরিমাণ খাবার নষ্ট করা হয় তাকে ‘বেদনাদায়ক ও কষ্টদায়ক’ বলে অভিহিত করেছেন তিনি। দেশটির সরকার এ ব্যাপারে বেশ কিছু কার্যকরী পদক্ষেপও নিয়েছে। খাদ্য অপচয় রোধে ‘ক্লিন প্লেট ক্যাম্পেইন’ নামে একটি প্রচারণাও শুরু হয়েছে দেশটিতে। 

সম্প্রতি চীনের দক্ষিণাঞ্চলজুড়ে ব্যাপক বন্যা হয়েছে। এতে বিপুল কৃষি খামার ভেসে গেছে। হাজার হাজার টন খাদ্যশস্য নষ্ট হয়েছে। দেশ খাবার সংকটের মুখে পড়তে যাচ্ছে বলে বিভিন্ন সতর্কবার্তা শোনা যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় প্রেসিডেন্ট জিনপিং এক ঘোষণায় বলেন, খাদ্য নিরাপত্তার সংকট নিয়ে চীনের নাগরিকদের অনুভূতিপরায়ণ হতে হবে। বিশ্লেষকরা বলছেন, খাদ্য অপচয় কমিয়ে আনলে খাদ্য নিরাপত্তা বৃদ্ধি পাবে। সেই সঙ্গে করোনার মধ্যে খাদ্য আমদানি ঘাটতি ও সরবরাহ সংকট মোকাবেলায় দেশের সক্ষমতা শক্তিশালী হবে।

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর