শিরোনাম
প্রকাশ : ১ অক্টোবর, ২০২০ ১১:৫৬

করোনা নিয়ে ৩৮ শতাংশ ছিল ট্রাম্পের মিথ্যাচার-আজগুবি তথ্য!

যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি:

করোনা নিয়ে ৩৮ শতাংশ ছিল ট্রাম্পের মিথ্যাচার-আজগুবি তথ্য!
ফাইল ছবি

সারাবিশ্বের ইংরেজী গণমাধ্যমে করোনাভাইরাস সম্পর্কে প্রকাশিত ৩ কোটি ৮০ লাখ সংবাদ, প্রবন্ধ-নিবন্ধ পর্যালোচনার পর নিউইয়র্কের খ্যাতনামা কর্ণেল ইউনিভার্সিটির গবেষকরা উল্লেখ করেছেন, করোনা ভাইরাস নিয়ে উদ্দেশ্যমূলক মিথ্যাচার, রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলে সত্য গোপন করা এবং নিজের স্বার্থে বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচারের ৩৮ শতাংশ এসেছে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের পক্ষ থেকে। করোনা মহামারিকে উষ্কে দিতে অনলাইন ও প্রচলিত গণমাধ্যমে সবচেয়ে বেশী মিথ্যাচার ছিল ট্রাম্পের। 

বৃহস্পতিবার বিশ্বব্যাপি পরিচালিত এই গবেষণা জরিপের ফলাফল প্রকাশ করা হচ্ছে। কৌশলে এমন অপকর্ম করা হয় বলেও মন্তব্য করা হয়েছে। এই জরিপের প্রধান কর্মকর্তা এবং কর্ণেল ইউনিভার্সিটির সায়েন্স এলায়েন্সের পরিচালক ড. সারাহ ইভানেগা বলেছেন, আশ্চার্যের ব্যাপার হচ্ছে যে এমন মিথ্যাচারে এককভাবে এগিয়ে রয়েছেন ট্রাম্প। এরফলে স্বাস্থ্য বিজ্ঞানীরাও করোনা প্রতিরোধে সঠিক পন্থা অবলম্বনে মাঝেমধ্যে বাধাপ্রাপ্ত হয়েছেন।  

কোনটি সত্য, আর কোনটি মিথ্যা সেটি যাচাইয়েও দ্বিধা-দ্বন্দে ছিলেন বিজ্ঞানীরা।  গবেষণায় ১১টি বিষয়কে চিহ্নিত করা হয়েছে অসৎ তথ্য প্রচারের ক্ষেত্রে। ট্রাম্পকে অভিশংসনের আলোচনার সময়ে অর্থাৎ জানুয়ারিতেই মার্কেটে প্রচার করা হয় যে ডেমক্র্যাটরা এই মহামারির আমদানী করছে চীন থেকে। চীনের উজানে করোনার প্রকোপ কীভাবে বিস্তৃত হচ্ছে তা নিয়েও আজগুবি কথা বলেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। করোনাভাইরাস নিরাময়ে এন্টি-ম্যালেরিয়া ড্রাগ মন্ত্রের মত কাজ করছে বলে বারংবার উল্লেখ করেছেন ট্রাম্প। যদিও বাস্তবে ঘটেছে উল্টো। 

জানুয়ারির ১ তারিখ থেকে ২৬ মে পর্যন্ত প্রকাশিত ও প্রচারিত ৩ কোটি ৮০ লাখ সংবাদ-নিবন্ধের ১১ লাখ অর্থাৎ ৩ শতাংশ এরও কম সংবাদে ছিল বিভ্রান্তিকর ও আজগুবি তথ্য। 


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর